বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Jadavpur Incident: জোড়া মৃতদেহ উদ্ধার যাদবপুরে, দীর্ঘদিনের সাংসারিক জীবনের মর্মান্তিক পরিণতি

Jadavpur Incident: জোড়া মৃতদেহ উদ্ধার যাদবপুরে, দীর্ঘদিনের সাংসারিক জীবনের মর্মান্তিক পরিণতি

যাদবপুর এলাকার একটি বাড়ি থেকে এক দম্পতির মৃতদেহ উদ্ধার করল পুলিশ। প্রতীকী ছবি।

দম্পতির ৩২ বছরের সাংসারিক জীবন ছিল। স্ত্রী জলি প্রসাদের ক্যানসার ধরা পড়ার পর থেকেই সংসারে অন্ধকার নেমে আসে। সংসারে দুঃসময় নেমে আসার পাশাপাশি মারণ রোগের যন্ত্রণায় ভুগে মেজাজ হারাতেন জলি প্রসাদ। তাই দুর্ব্যবহার করে ফেলতেন স্বামী বৈজনাথের সঙ্গে। অভব্য আচরণ সহ্য করার সঙ্গে যোগ হয়েছিল আর্থিক সমস্যা।

খাস কলকাতায় আবারও জোড়া মৃতদেহ উদ্ধারের ঘটনায় জোর আলোড়ন পড়ে গেল। শুক্রবার বেশি রাতে যাদবপুর এলাকার একটি বাড়ি থেকে এক দম্পতির মৃতদেহ উদ্ধার করল পুলিশ। তবে মৃতদেহের সঙ্গে উদ্ধার হয়েছে একটি সুইসাইড নোটও। জোড়া দেহ উদ্ধারের ঘটনায় শনিবার সকালেও জোর চর্চা শুরু হয়েছে। এই ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে যাদবপুর থানার পুলিশ। এখানে ক্যানসারে আক্রান্ত ছিলেন স্ত্রী বলে খবর। আর এই চিকিৎসার বিপুল খরচ টানা সম্ভব হচ্ছিল না। কারণ চাকরি না থাকায় রোজগার ছিল না স্বামীর। তাই প্রবল অর্থকষ্টে স্বামী–স্ত্রীর মধ্যে খিটমিট লেগে থাকত। আর সেখান থেকেই মানসিক অবসাদ। শেষে দীর্ঘদিনের দাম্পত্য জীবনের মর্মান্তিক পরিণতি ঘটল।

ঠিক কী ঘটেছে যাদবপুরে?‌ স্থানীয় সূত্রে খবর, স্ত্রীকে খুন করে আত্মঘাতী হয়েছেন স্বামী। যাদবপুর থানা এলাকায় চিত্তরঞ্জন কলোনিতে দাম্পত্য জীবনের মর্মান্তিক পরিণতি ঘটেছে। খুন হওয়া স্ত্রীর নাম জলি প্রসাদ (‌৫৭)‌। ক্যানসার আক্রান্ত ছিলেন তিনি। তাঁকেই খুন করার অভিযোগ উঠেছে স্বামী বৈজনাথ প্রসাদের বিরুদ্ধে। খুন করার পর বৈজনাথ প্রসাদ (‌৬২)‌ নিজেও আত্মঘাতী হন। তবে একটি সুইসাইড নোটও লিখে রেখে গিয়েছেন দম্পতি। বৈজনাথ প্রসাদ পেশায় গাড়িচালক ছিলেন। একটি বেসরকারি সংস্থায় গাড়ি চালাতেন। তাঁর স্ত্রী জলি বহুদিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন।

পুলিশ কী তথ্য পেয়েছে?‌ পুলিশ সূত্রে খবর, সুইসাইড নোটে নিজের খুনের কথা স্বীকার করে গিয়েছেন স্বামী বৈজনাথ প্রসাদ। আর সুইসাইড নোটে তিনি এই ঘটনার জন্য কাউকে দায়ী করেননি। যাদবপুরের চিত্তরঞ্জন কলোনি এলাকায় শুক্রবার রাতে এক দম্পতির দেহ উদ্ধার হয়। মৃতদের নাম বৈজনাথ প্রসাদ (৬২) এবং জলি প্রসাদ (৫৭)। চিত্তরঞ্জন কলোনির একটি একচালা ঘরে থাকতেন তাঁরা। প্রাথমিক তদন্তে মনে করা হচ্ছে স্ত্রীকে শ্বাসরোধ করে খুন করেই আত্মঘাতী হয়েছেন স্বামী বৈজনাথ।

আর কী জানা যাচ্ছে?‌ দম্পতির ৩২ বছরের সাংসারিক জীবন ছিল। কিন্তু স্ত্রী জলি প্রসাদের ক্যানসার ধরা পড়ার পর থেকেই সংসারে অন্ধকার নেমে আসে। সংসারে দুঃসময় নেমে আসার পাশাপাশি মারণ রোগের যন্ত্রণায় ভুগে মেজাজ হারাতেন জলি প্রসাদ। তাই দুর্ব্যবহার করে ফেলতেন স্বামী বৈজনাথের সঙ্গে। অভব্য আচরণ সহ্য করার সঙ্গে যোগ হয়েছিল আর্থিক সমস্যা। গত ৭ মাস ধরে কাজ ছিল না তাঁর। কারণ দৃষ্টিশক্তি কমে আসছিল তাঁর। আর ক্যানসারের চিকিৎসার বিপুল খরচ চালাতে হিমশিম খেতে হচ্ছিল। কিছুদিন আগে আত্মীয়রা ওই দম্পতিকে আর্থিক সহায়তা করেছিলেন। কিন্তু এভাবে বেঁচে থাকতে চাননি বৈজনাথ প্রসাদ। তাই এই মর্মান্তিক পরিণতি বলে সূত্রের খবর।

বাংলার মুখ খবর
বন্ধ করুন

Latest News

TRP: মাস শেষের চমক! টপার জগদ্ধাত্রী হলেও, টক্কর নিম ফুলের মধু-ফুলকিতে, দুইয়ে কে '১০ বছর খুব ব্যস্ত থাকতে হবে আপনাকে', শাহজাহানের আইনজীবীকে বললেন প্রধান বিচারপতি শাহজাহান গ্রেফতার, মিষ্টি, লাল আবির,জয় শ্রীরাম স্লোগানে উৎসব সন্দেশখালিতে 'লালমোহন বাবুকে বলে দে...' শুরু ভূস্বর্গ ভয়ঙ্করের প্রস্তুতি, কী জানালেন টোটা? বাজারে দেখলেই কিনে ফেলুন মৃগেল! পরে এই লেখাটিকে ধন্যবাদ জানাবেন 'বিদ্রোহী' ৬ বিধায়কের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ, হিমাচলে 'পথেক কাঁটা' সাফ করল কংগ্রেস লিঙ্গ বদলাতে সন্তানকে অস্বীকার মায়ের!দিদি নম্বর ১-এ বন্যার মেয়ে হয়ে ওঠার গল্প উত্তরকাশীর টানেলে উদ্ধারকাজে অংশ নেওয়া ব়্যাট হোল মাইনারের বাড়িতে চলল বুলডোজার! ২টো ব্যর্থ প্রেমের পর নায়িকা পান স্বামী, বউয়ের ছোটবেলা বরের ফোনে, বলুন তো কে? আসছে গ্রহণ যোগ, সূর্য আর রাহুর দ্বন্দ্বে জীবনে বড় প্রভাব পড়বে এই ৩ রাশির

Copyright © 2024 HT Digital Streams Limited. All RightsReserved.