বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > জেলে মৃত্যু ৩,০০০ কোটি টাকা তছরূপে অভিযুক্ত আইকোর কর্ণধার অনুকূল মাইতির
অনুকূল মাইতি। গোলাপি জামায়। ফাইল ছবি
অনুকূল মাইতি। গোলাপি জামায়। ফাইল ছবি

জেলে মৃত্যু ৩,০০০ কোটি টাকা তছরূপে অভিযুক্ত আইকোর কর্ণধার অনুকূল মাইতির

  • ২০১৫ সালে পূর্ব মেদিনীপুরে নিজের বাড়ি থেকে অনুকূলকে গ্রেফতার করেছিল সিআইডি। তাঁর বিরুদ্ধে পশ্চিমবঙ্গ ছাড়াও ত্রিপুরা, ঝড়খণ্ড ও ওড়িশা থেকে ৩,০০০ কোটি টাকা ফিক্সড ডিপোজিট ও ডিবেঞ্চারের নামে তোলার অভিযোগ ওঠে।

বিচারাধীন অবস্থায় জেলে মৃত্যু হল বেআইনি লগ্নি সংস্থা আইকোরের কর্ণধার অনুকূল মাইতি। শনিবার রাতে ওড়িশার জেলে হৃদরোগে আক্রান্ত হন তিনি। হাসপাতালে নিয়ে গেলে তাঁকে মৃত ঘোষণা করা হয় বলে জানিয়েছে কারা কর্তৃপক্ষ। প্রায় ৩,০০০ কোটি টাকা তছরূপের অভিযোগে ছিল অনুকূলের বিরুদ্ধে। পরিবারের তরফে জানানো হয়েছে, সম্প্রতি জামিন পেলেও জামানত জমা দিতে না পারায় জেল থেকে বেরোতে পারেননি তিনি। 

আইকোর চিটফান্ড কাণ্ডে মূল অভিযুক্ত অনুকূল মাইতি ওড়িশার ঝারপদা জেলে বন্দি ছিলেন। শনিবার রাতে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়লে তাঁকে স্থানীয় ক্যাপিটাল হাসপাতালে নিয়ে যায় জেল কর্তৃপক্ষ। সেখানে তাঁকে মৃত ঘোষণা করা হয়। এর পর খবর দেওয়া হয় অনুকূলবাবুর স্ত্রী কণিকা মাইতিকে। সম্প্রতি আইকোর মামলাআয় জেল থেকে ছাড়া পেয়েছেন তিনি। 

২০১৫ সালে পূর্ব মেদিনীপুরে নিজের বাড়ি থেকে অনুকূলকে গ্রেফতার করেছিল সিআইডি। তাঁর বিরুদ্ধে পশ্চিমবঙ্গ ছাড়াও ত্রিপুরা, ঝড়খণ্ড ও ওড়িশা থেকে ৩,০০০ কোটি টাকা ফিক্সড ডিপোজিট ও ডিবেঞ্চারের নামে তোলার অভিযোগ ওঠে। পরে তদন্তভার সিবিআইয়ের হাতে গেলে ওড়িশায় প্রতারিতদের দায়ের করা মামলায় তাঁকে হেফাজতে নেন কেন্দ্রীয় তদন্তকারীরা। সেই থেকে ওড়িশার জেলে বন্দি ছিলেন তিনি। 

অনুকূলের সঙ্গে গ্রেফতার হয়েছিলেন তাঁর স্ত্রী কণিকা ও সংস্থার আরও ২ আধিকারিক। তাঁরা সবাই সম্প্রতি জামিনে মুক্ত হয়েছেন। পরিবারের তরফে জানানো হয়েছে, সম্প্রতি জামিন পেয়েছিলেন অনুকূলও। কিন্তু জামানতের বিপুল অংক জোগাড় করতে পারছিলেন না তিনি। তাই মুক্তি পাননি। জেল থেকে জানানো হয়েছে, উচ্চ রক্তচাপ ও ডায়াবেটিসে ভুগছিলেন অনুকূল। 

 

বন্ধ করুন