সায়ন্তন বসু। ফাইল ছবি
সায়ন্তন বসু। ফাইল ছবি

কুকুর বলতে খারাপ লাগলে বুদ্ধিজীবীদের বাঁদর বলুন: সায়ন্তন বসু

  • এদিন সৌমিত্র খাঁয়ের মন্তব্যকে সমালোচনা করায় সায়ন্তনের সমালোচনার মুখে পড়তে হয় বুদ্ধিজীবীদের।

বুদ্ধিজীবীদের ফের বেলাগাম শব্দে আক্রমণ করলেন রাজ্য বিজেপির এক শীর্ষনেতা। এবার রাজ্য বিজেপির মুখপাত্র সায়ন্তন বসু। সোমবার তিনি বলেন, ‘বিশিষ্টজনদের কুকুর বলতে আপত্তি থাকলে বাঁদর বলুন’। যা নিয়ে নতুন করে শুরু হয়েছে বিতর্ক।

গত কয়েক দিন ধরেই বিজেপি নেতৃত্বের আক্রমণের শিকার হচ্ছেন রাজ্যের বুদ্ধিজীবীরা। গত সপ্তাহে হাওড়ায় এক জনসভায় বুদ্ধিজীবীদের ‘পরজীবী’ বলে কটাক্ষ করেছিলেন রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ। রবিবার সেই পথেই আক্রমণ করতে গিয়ে মাত্রা ছাড়ান বিষ্ণুপুরের বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ। বলেন, ‘যারা পার্কস্ট্রিট কাণ্ডের মতো ঘটনায় চুপ করে থাকেন তারা তৃণমূলের পোষা কুকুর ছাড়া আর কিছু নয়।’

এদিন সৌমিত্র খাঁয়ের মন্তব্যকে সমালোচনা করায় সায়ন্তনের সমালোচনার মুখে পড়তে হয় বুদ্ধিজীবীদের। সায়ন্তন বলেন, ‘বিশিষ্টদের কুকুর বলতে খারাপ লাগলে বাঁদর বলতে পারেন।’।

বুদ্ধিজীবীদের নিয়ে এদিন মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও। নয়া দিল্লির সদর দফতরে দলের নতুন সভাপতি নির্বাচনের পর বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘বুদ্ধিজীবীরা কোনও দিন আমাদের সঙ্গে ছিলেন না। আমাদের ওদের সমর্থন দরকার নেই। ওদের ছাড়াই আমরা মানুষের সমর্থনে জিতব।’

রাজনৈতিক মহলের মতে, বিজেপির পরবর্তী লক্ষ্য পশ্চিমবঙ্গ। আর এরাজ্যে জনমত নিয়ন্ত্রণে যে বুদ্ধিজীবীদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে তা বুঝতে পেরেছে বিজেপি নেতৃত্ব। তাদের সমর্থন আদায় সম্ভব নয় বুঝে লাগাতার কুকথার মাধ্যমে বুদ্ধিজীবী প্রতি জনমানসে ঘৃণার পরিবেশ তৈরির চেষ্টা চালাচ্ছে গেরুয়া ব্রিগেড। এই গোটাটাই বিজেপির মিশন ২০২১ কর্মসূচির অংশ।

বন্ধ করুন