বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > জোর জল্পনার মধ্যে স্বামীকে নিয়ে নবান্নে অপরূপা পোদ্দার, দেখা করলেন মমতার সঙ্গে
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও অপরূপা পোদ্দার। ফাইল ছবি
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও অপরূপা পোদ্দার। ফাইল ছবি

জোর জল্পনার মধ্যে স্বামীকে নিয়ে নবান্নে অপরূপা পোদ্দার, দেখা করলেন মমতার সঙ্গে

  • তবে কী তাঁদের বোঝানোর জন্যই নবান্নে ডাকা হয়েছিল?‌ সূত্রের খবর, এদিন নবান্নে তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা ও দলের নেতৃত্বদের কাছে তাঁদের ক্ষোভের কথা জানিয়েছেন অপরূপা ও সাকির।

‌তৃণমূলে থাকবেন নাকি দলবদল?‌ তাঁদের ঘিরে এই প্রশ্নই উঠে আসছে কয়েকদিন ধরে। এই জল্পনার মধ্যেই বুধবার বিকেলে আচমকা নবান্নে হাজির হন আরামবাগের তৃণমূল সাংসদ অপরূপা পোদ্দার ও তাঁর স্বামী সাকির আলি। জানা গিয়েছে, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করতেই তাঁদের নবান্নে আগমন। কিন্তু কেন এমন জল্পনা তৈরি হল?‌

দলীয় সূত্রে খবর, কিছুদিন আগেই দল ছাড়ার কথা বলেছিলেন সাকির। তৃণমূল নিয়ে বিরক্তও প্রকাশ করেছিলেন তিনি। ওদিকে, অপরূপা নাম না করে সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের সমালোচনা করেছিলেন। বলেছিলেন, ‘‌কাউকে সম্মান দিলেই সম্মান পাওয়া যায়। একজন জনপ্রতিনিধি আর একজন মন্ত্রী, বিধায়ককে কী ভাষায় কটাক্ষ করেছেন, তা জনগণ শুনেছেন।’‌ এখানে মন্ত্রী, বিধায়ক হলেন শুভেন্দু অধিকারী। কারণ, শুভেন্দু তৃণমূল ছাড়ার আগে কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় এক কর্মিসভায় তাঁরে নিশানা করে বলেছিলেন, ‘‌মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় না থাকলে পুরসভার বাইরে আলু বেচতিস।’‌ স্বামী–স্ত্রী দু’‌জনরেই তৃণমূলের প্রতি ক্ষোভ স্বাভাবিকভাবেই জল্পনা তৈরি করে।

যদিও এদিন নবান্ন থেকে বেরিয়ে সমস্ত জল্পনা উড়িয়ে দিয়েছেন সাংসদ অপরূপা পোদ্দার। তিনি পরিষ্কার বলেন, ‘‌কোনও জল্পনার অবকাশ নেই। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গেই ছিলাম, আছি এবং থাকব।’‌ সম্প্রতি গেরুয়া বসনে স্বামী বিবেকানন্দ সেজে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছবি দিয়েছিলেন অপরূপার স্বামী সাকির আলি। সে নিয়ে জল্পনাও দেখা দেয়। এদিন নবান্ন থেকে বেরিয়ে তিনি বলেন, ‘‌তৃণমূলেই আছি। বিজেপি–তে যাচ্ছি না।’‌

তবে কী তাঁদের বোঝানোর জন্যই নবান্নে ডাকা হয়েছিল?‌ সূত্রের খবর, এদিন নবান্নে তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা ও দলের নেতৃত্বদের কাছে তাঁদের ক্ষোভের কথা জানিয়েছেন অপরূপা ও সাকির। একইসঙ্গে তাঁদের আশ্বস্ত করে বুঝিয়েছেন মমতা, এমনই জানা গিয়েছে।

বন্ধ করুন