বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > অস্বস্তি এড়াতে জহর সরকারকে নতুন WhatsApp গ্রুপে ফেরাল তৃণমূল
প্রাক্তন প্রসার ভারতীর অধিকর্তা জহর সরকার। ছবি সৌজন্য–এএনআই।

অস্বস্তি এড়াতে জহর সরকারকে নতুন WhatsApp গ্রুপে ফেরাল তৃণমূল

  • তৃণমূলের দুর্নীতির বিরুদ্ধে সরব হয়ে সংবাদমাধ্যমের সামনে মুখ খুলেছেন তৃণমূলের রাজ্যসভার সাংসদ জহর সরকার। দুর্নীতির বিরুদ্ধে তাঁর এই অবস্থানের জন্য তৃণমূলের লাগাতার আক্রমণের মুখে পড়তে হয়েছে তাঁকে।

দিন গড়াতে না গড়াতেই জহর সরকারকে ফের নতুন WhatsApp গ্রুপে অ্যাড করল তৃণমূল। শনিবার সকালে জহর সরকারকে তৃণমূলের রাজ্য সভার সাংসদদের গ্রুপ থেকে বহিষ্কার করা হয়। সেই নিয়ে শোরগোল শুরু হতেই বিকেলে নতুন গ্রুপ খুলে তাঁকে ফের অ্যাড করা হয়েছে বলে খবর। এই নিয়ে কোনও মন্তব্য করেননি জহর সরকার।

তৃণমূলের দুর্নীতির বিরুদ্ধে সরব হয়ে সংবাদমাধ্যমের সামনে মুখ খুলেছেন তৃণমূলের রাজ্যসভার সাংসদ জহর সরকার। দুর্নীতির বিরুদ্ধে তাঁর এই অবস্থানের জন্য তৃণমূলের লাগাতার আক্রমণের মুখে পড়তে হয়েছে তাঁকে। সৌগত রায় থেকে বিশ্বজিৎ দাসের মতো নেতা প্রকাশ্যে তাঁর মন্তব্যের সমালোচনা করেছেন। জহর সরকারের মন্তব্যকে যে তৃণমূল সমর্থন করে না তাও স্পষ্ট করে দেওয়া হয়েছে।

এরই মধ্যে সোমবার সকালে তৃণমূলের রাজ্যসভার সাংসদদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ থেকে বহিষ্কার করা হয় জহর সরকারকে। সেই খবর প্রকাশ্যে আসতেই শোরগোল শুরু হয়। তবে কি পদত্যাগ করেছেন জহর সরকার। এই নিয়ে দিনভর চলে জল্পনা। ওদিকে এই ঘটনা নিয়ে প্রতিক্রিয়া দিতে অস্বীকার করেন জহরবাবু। সংবাদমাধ্যমে বিষয়টি সম্প্রচারিত হতেই তৎপর হয় তৃণমূল নেতৃত্ব। অস্বস্তি এড়াতে বিকেলে তৈরি হয় রাজ্যসভার সাংসদদের নতুন গ্রুপ। সেই গ্রুপে অ্যাড করা হয় জহর সরকারকে।

তৃণমূল সূত্রের খবর, জহর সরকারকে দলের তরফে স্পষ্ট বার্তা দেওয়া হয়েছে। এবার তিনি কী করবেন সেটা তাঁর ব্যাপার।

 

বন্ধ করুন