বাঁকুড়ার সাংসদ সুভাষ সরকারের সঙ্গে আলাপচারিতায় বিজেপির পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ
বাঁকুড়ার সাংসদ সুভাষ সরকারের সঙ্গে আলাপচারিতায় বিজেপির পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ

গেরুয়া শিবিরের কেউ মার খেলে তো এমন রোষ দেখি না, প্রশ্ন দিলীপের

  • ঘটনার সঙ্গে AVBP-র যোগ প্রমাণসাপেক্ষ বলে মন্তব্য করেন দিলীপবাবু। তিনি বলেন, 'কারও বিরুদ্ধে অভিযোগ হলেই সে দোষী হয় না।

প্রত্যাশিত ভাবেই দিল্লির জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়াদের ওপর হামলাকে সমর্থন করলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। সোমবার সকালে সংবাদমাধ্যমকে তিনি বলেন, 'কই গেরুয়া শিবিরের লোকেরা মার খেলে তো এমন রোষ দেখি না?' সঙ্গে তাঁর হুঁশিয়ারি, 'কমিউনিস্টদের মার খাওয়ার সময় হয়েছে, এই রকম হামলা আরও হবে।'

ঘটনার সঙ্গে AVBP-র যোগ প্রমাণসাপেক্ষ বলে মন্তব্য করেন দিলীপবাবু। তিনি বলেন, 'কারও বিরুদ্ধে অভিযোগ হলেই সে দোষী হয় না। কে মেরেছে জানি না। তবে কমিউনিস্টদের মার খাওয়ার সময় হয়েছে।'

এদিন দিলীপবাবু পালটা প্রশ্ন ছুঁড়ে বলেন, 'বাবুলকে যখন যাদবপুরে হেনস্থা করা হয়েছিল তখন তো কেউ কোনও কথা বলেননি? মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেও টুইট করতে দেখিনি। আর কমিউনিস্টরা মার খেতেই এখন হইচই শুরু হয়ে গিয়েছে। কমিউনিস্টদের মার খাওয়ার সময় হয়েছে।'

রবিবার রাতে জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়ের মহিলা হস্টেলে ঢুকে তাণ্ডব চালায় মুখোশপরা একদল দুবৃত্ত। ছাত্র সংসদের সাধারণ সম্পাদক ঐশী ঘোষকে ব্যাপক মারধর করে তারা। নিগ্রহের শিকার হন অধ্যাপকরাও। আঘাত গুরুতর হওয়ায় এইমসের ট্রমা কেয়ার সেন্টারে ভর্তি করতে হয়েছে ঐশীকে। ঘটনাকে সংঘর্ষ বলে দাবি করে ABVP-র তরফে জানানো হয়েছে আহত তাদেরও বেশ কয়েকজন সদস্য। ঘটনার পর কয়েকজনকে খুঁজেও পাওয়া যাচ্ছিল না।

জেএনইউতে তাণ্ডবে প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে দেশজুড়ে। শাসকদল বিজেপি ছাড়া ঘটনার নিন্দা করে টুইট করেছেন প্রায় সমস্ত রাজনৈতিক দলের নেতৃত্ব। টুইট করেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

বন্ধ করুন