বাড়ি > বাংলার মুখ > কলকাতা > হাইকোর্টে জামিন পেলেন ‘আরামবাগ টিভি’-র সম্পাদক সফিকুল ও সাংবাদিক সুরজ আলি
বাঁ দিকে সুরজ আলি
বাঁ দিকে সুরজ আলি

হাইকোর্টে জামিন পেলেন ‘আরামবাগ টিভি’-র সম্পাদক সফিকুল ও সাংবাদিক সুরজ আলি

  • গত ২৯ জুলাই তোলাবাজির একটি মামলায় সফিকুল ইসলামকে আরামবাগে তাঁর বাড়ির দরজা ভেঙে গ্রেফতার করেছিল পুলিশ।

দেড়মাসের আইনি যুদ্ধের শেষে সমস্ত মামলায় জামিন পেলেন ইউটিউব চ্যানেল ‘আরামবাগ টিভি’-র সম্পাদক সফিকুল ইসলাম ও সাংবাদিক সুরজ আলি খান। শুক্রবার কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চ তাঁদের জামিন মঞ্জুর করেন। জামিন পেয়েছেন সাংবাদিক সফিকুল ইসলামের স্ত্রী আলিমা খাতুন। ১০ হাজার টাকার ব্যক্তিগত বন্ডে তাঁদের জামিন দিয়েছে আদালত। 

গত ২৯ জুলাই তোলাবাজির একটি মামলায় সফিকুল ইসলামকে আরামবাগে তাঁর বাড়ির দরজা ভেঙে গ্রেফতার করেছিল পুলিশ। তখন সবে ভোরের আলো ফুটছে। মা-বাবাকে গ্রেফতার করে তাঁদের ঘুমন্ত ২ শিশুকেও তুলে থানায় নিয়ে আসেন পুলিশকর্মীরা। তৃণমূলের পঞ্চায়েত সদস্যের করা এক তোলাবাজির অভিযোগে কয়েক ঘণ্টার মধ্যে জঙ্গি ধরার কায়দায় সফিকুলকে গ্রেফতার করেছিলেন আরামবাগ থানার আইসি পার্থসারথি হালদার। 

বিরোধীদের দাবি, লকডাউনের শুরুতে আরামবাগ থানা থেকে ক্লাবগুলিকে প্রশাসনের চেক বিলির ছবি সম্প্রচার করেছিল আরামবাগ টিভি। তার জেরেই শাসকদলের রোষে পড়ে তারা। এই ঘটনায় প্রথমে সফিকুলদের বিরুদ্ধে ভুয়ো খবর সম্প্রচারের মামলা করেছিল পুলিশ। কিন্তু সেই অভিযোগ আদালতে প্রমাণ করতে পারেনি তারা। এর পর বিভিন্ন কারণ দেখিয়ে সফিকুল ও সুরজ আলির বিরুদ্ধে মোট ৬টি মামলা দায়ের করে পুলিশ। আলিমা বিবির বিরুদ্ধে ছিল ১টি মামলা। 

আগেই ৩টি মামলায় জামিন পেয়েছিলেন সফিকুলরা। শুক্রবার বাকি তিনটি মামলাতেও জামিন পান তাঁরা। এই মামলার শুনানিতে হাইকোর্ট গত সপ্তাহে রাজ্য পুলিশের ডিজির কাছে রিপোর্ট তলব করে। তার পরই শুক্রবার জামিন হল তাঁদের। সম্ভবত শনিবার জেল থেকে মুক্তি পাবেন তাঁরা। তাঁদের হয়ে আদালতে সওয়াল করে আইনজীবী তথা রাজ্যসভার সাংসদ বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য ও আইনজীবী সব্যসাচী চট্টোপাধ্যায়। 

 

বন্ধ করুন