বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > পুরভোটে টিকিট দিয়েছেন ভ্রাতৃবুধূকে, 'পুরস্কারও' চেয়ে নিলেন মমতা!
কাজরী বন্দ্যোপাধ্যায়। (ছবি সৌজন্য এএনআই)
কাজরী বন্দ্যোপাধ্যায়। (ছবি সৌজন্য এএনআই)

পুরভোটে টিকিট দিয়েছেন ভ্রাতৃবুধূকে, 'পুরস্কারও' চেয়ে নিলেন মমতা!

  • দিদির কথা শুনেই আমি প্রচারে নেমেছি। দিদি আমাকে বলেছেন আমি যদি তাঁর থেকে বেশি ভোটে জিততে পারি তাহলে সেটাই হবে তাঁর পুরস্কার।'

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ভ্রাতৃবধূ কাজরী বন্দ্যোপাধ্যায়কে তাঁর চেয়েও বেশি ভোটে জয়ী হতে বলেছেন। আর তারপরেই কোমর বেঁধে প্রচারের ময়দানে নেমে পড়লেন তাঁর ভ্রাতৃবধূ কাজরী বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রচারে নেমেই তিনি বললেন, 'দিদির কথা শুনেই আমি প্রচারে নেমেছি। দিদি আমায় বলেছেন আমি যদি তাঁর থেকে বেশি ভোটে জিততে পারি তাহলে সেটাই হবে তাঁর পুরস্কার।'

গত শুক্রবার ঘরের ওয়ার্ড থেকেই ভ্রাতৃবধূকে পুরভোটের প্রার্থী ঘোষণা করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ইতিমধ্যেই সমস্ত প্রার্থীরাই কোমর বেঁধে প্রচারের কাজে নেমে পড়েছেন। শুধু তৃণমূলই নয়, আটঘাট বেঁধে প্রচারে নেমে পড়েছেন সমস্ত রাজনৈতিক দলের প্রার্থীরা।

তৃণমূল সূত্রের খবর, গত রবিবার কালীঘাটের জয় হিন্দ ভবনে ৭৩ নম্বর ওয়ার্ডের কর্মিসভার আয়োজন করা হয়েছিল। সেই সভায় বক্তব্য রেখেছিলেন কাজরী বন্দ্যোপাধ্যায়। সাধারণত রাজনৈতিক পরিবারের সঙ্গে যুক্ত থাকা সত্ত্বেও কোনওদিন রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত ছিলেন না মুখ্যমন্ত্রীর ভ্রাতৃবধূ। ফলে বক্তৃতা দিতে তিনি খুব বেশি অভ্যস্ত নন। কর্মিসভায় সে কথাই বলেছিলেন কাজরীর স্বামী কার্তিক বন্দ্যোপাধ্যায়। কাজরী বলেন, ' আমায় প্রার্থী ঘোষণার পরেই আমি দিদির কাছে গিয়েছিলাম। দিদি আমাকে বলেছেন প্রচারের কাজে নেমে যেতে।'

তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁকে সমস্তরকমভাবে সাহায্য করার আশ্বাস দিয়েছেন বলে তিনি জানিয়েছেন। একইসঙ্গে তৃণমূল কর্মীদের কাছে হাত মিলিয়ে সমস্ত রকমভাবে সাহায্য চেয়ে আবেদন জানিয়েছেন তিনি।

বন্ধ করুন