বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > KMC Trade License: বড় ছাড় কলকাতা পুরসভার! ছোট দোকানদারদের দিতে হবে না জল, আবর্জনা ফি

KMC Trade License: বড় ছাড় কলকাতা পুরসভার! ছোট দোকানদারদের দিতে হবে না জল, আবর্জনা ফি

কলকাতা পুরসভা ফাইল ছবি

৫০০ বর্গফুটের কম দোকানের ক্ষেত্রে শুধুমাত্র ট্রেড লাইসেন্স ফি নেওয়া হবে। তবে ছোট হোটেল বা রেঁস্তোরা এই সুবিধা পাবে না।

৫০০ বর্গফুটের কম আয়তনের দোকানের ক্ষেত্রে ট্রেড লাইসেন্স ফি ছাড়া অন্য কোনও টাকা দিতে হবে না। এর আগে ট্রেড লাইসেন্স ফি ছাড়াও দোকানের ময়লা পরিষ্কার, পানীয় জল ব্যবহারের জন্য আলাদা করের ফি দিতে হতো ছোট ব্যবসায়ীকেও। সোমবার এই নিয়ে একটি বৈঠকে বসে কলকাতা পুরসভার মেয়র পারিষদ। সেই বৈঠকেই সিদ্ধান্ত হয়েছে ৫০০ বর্গফুটের কম দোকানের ক্ষেত্রে শুধুমাত্র ট্রেড লাইসেন্স ফি নেওয়া হবে। তবে ছোট হোটেল বা রেঁস্তোরা এই সুবিধা পাবে না।

ট্রে়ড লাইসেন্স ফি নিয়ে সোমবার সকাল থেকেই উত্তাল ছিল কলকাতা পুরসভা। বিজেপির পুর প্রতিনিধি এদিন দফায় দফায় বিক্ষোভ দেখায় পুরসভার অন্দরে। পুর কমিশনারের কাছে স্মারকলিপিও জমা দেয়। দুপুর নাগাদ এক বৈঠক হয় মেয়র পারিষদের। সেই বৈঠকে ছোট দোকানের ক্ষেত্রে জল ও আবর্জনার জন্য আলাদা ফি মুকুব করা সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

বিরোধীদের চাপেই কি এই সিদ্ধান্ত? মেয়র ফিরহাদ হাকিম বলেন, 'বিরোধীরা কী বলল জানি না। ছোট ব্যবসায়ীদের কথা ভেবেই পুরসভা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।' মেয়র বলেন,'যাঁরা ছোট ব্যবসায়ী তাঁদের থেকে জল সরবরাহ, নিকাশি ও আবর্জনা পরিষ্কার বাবদ আর কোনও অতিরিক্তি টাকা নেওয়া হবে না। হোটেল ও রেঁস্তোরা বাদ দিয়ে যাঁদের দোকান ৫০০ বর্গফুট তাঁদের জন্য এই নিয়ম কার্যকরী হল। ছোট ব্যবসায়ীরা ট্রেড লাইসেন্সের টাকা দিলেই ব্যবসা করতে পারবেন।'

ট্রেড লাইসেন্স নিয়ে ব্যবসায়ী মহলের অভিযোগ, দালালচক্রের হাতে পড়ে নতুন লাইসেন্স বা তা রিনিউ করতে প্রচুর টাকা গুনতে হচ্ছে। বিজেপির পুরপ্রতিনিধিরাও সোমবারের বিক্ষোভে অভিযোগ করেন। এ নিয়ে মেয়র জানিয়েছেন, যত বড়ই ব্যবসা হোক ট্রেড লাইসেন্সের জন্য আড়াই হাজার টাকার এক পয়সা বেশি নেওয়া যাবে না। প্রসঙ্গক্রমে তিনি বলেন,'গ্র্যান্ড হোটেলের মতো শতাব্দী প্রাচীন হোটেলের ক্ষেত্রে ট্রেড লাইসেন্স ফি বাবদ আড়াই হাজার টাকার বেশি নেওয়া হয় না।'

ছোট হোটেল ও রেঁস্তোরা ব্যবসায়ীদের থেকে ছাড় নয় কেন? এ প্রসঙ্গে মেয়র বলেন,'খাবারের দোকানে বেশি উচ্ছিষ্ট জমে। পানীয় জলও সেখানে অনেক বেশি প্রয়োজন। তাই তাদের ট্রেড লাইসেন্স ছাড়াও অন্যান্য পরিষেবা ব্যবহারের জন্য টাকা দিতে হবে। দোকনদাররা নিজেরাই হলফনামা দিয়ে জানাবেন কতটা পানীয় জল ব্যবহার করছেন তাঁরা, কতটা আবর্জনা দোকান থেকে তুলতে হচ্ছে। সেই অনুযায়ী টাকা নেবে পুরসভা।'

পুরসভার সূত্রে খবর, যাদের কাছে বাড়তি ফি সহ বিল চলে গিয়েছে তাদের তা সংশোধন করে নতুন বিল দেওয়া হবে।

বাংলার মুখ খবর
বন্ধ করুন

Latest News

গ্রেফতার শেখ শাহজাহান, ৫৫ দিন কোথায় 'লুকিয়ে' ছিলেন সন্দেশখালির 'বাঘ'? বোনে বোনে ভাব নেই! পরিণীতির বিয়েতে আসেননি, মার্চে মীরার বিয়ে, প্রিয়াঙ্কা ফিরবেন? ধনু, মকর, কুম্ভ, মীন এই ৪ রাশির ভাগ্যে আজ কী রয়েছে? জানুন ২৯ ফেব্রুয়ারির রাশিফলে ৯০ বছর বয়সে সবচেয়ে বড় কনসার্ট আশা ভোঁসলের, পারবেন তো গাইতে আগের মতো গান! শুধু শ্রেয়স ও ইশানই নন, BCCI-এর চুক্তি থেকে বাদ পড়লেন পূজারা-সহ এই সাত তারকা মীন রাশির আজকের দিন কেমন যাবে? জানুন ২৯ ফেব্রুয়ারির রাশিফল কুম্ভ রাশির আজকের দিন কেমন যাবে? জানুন ২৯ ফেব্রুয়ারির রাশিফল মকর রাশির আজকের দিন কেমন যাবে? জানুন ২৯ ফেব্রুয়ারির রাশিফল ধনু রাশির আজকের দিন কেমন যাবে? জানুন ২৯ ফেব্রুয়ারির রাশিফল বৃশ্চিক রাশির আজকের দিন কেমন যাবে? জানুন ২৯ ফেব্রুয়ারির রাশিফল

Copyright © 2024 HT Digital Streams Limited. All RightsReserved.