বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > KMC: অবৈধ নির্মাণ রুখতে কড়া পদক্ষেপ, কাউন্সিলরদের কাছে তালিকা পাঠাবে পুরসভা

KMC: অবৈধ নির্মাণ রুখতে কড়া পদক্ষেপ, কাউন্সিলরদের কাছে তালিকা পাঠাবে পুরসভা

কলকাতা পুরসভার মূল ভবন। ফাইল ছবি

অবৈধ নির্মাণ নিয়ে কাউন্সিলরদের আরও সতর্ক হতে বলেছেন মেয়র। তিনি বলেন, ‘কাউন্সিলররা মাঝে মধ্যেই তাঁদের ওয়ার্ডে অবৈধভাবে নির্মীয়মাণ ভবন সম্পর্কে অন্ধকারে থাকেন। তাই এই ধরনের কার্যকলাপ রুখতে আমাদের কাউন্সিলরদের আরও সক্রিয় হতে হবে।’ 

অবৈধ নির্মাণ রুখতে তৎপর কলকাতা পুরসভা। এবার থেকে পুরসভার বিল্ডিং বিভাগ অনুমোদিত নির্মীয়মাণ বিল্ডিংয়ের সংখ্যা এবং ঠিকানা স্থানীয় কাউন্সিলরদের কাছে পাঠাবে। এর ফলে সহজেই অবৈধভাবে নির্মিত বিল্ডিং চিহ্নিত করতে পারবেন কাউন্সিলররা। এ সম্পর্কে তাঁরা বিল্ডিং বিভাগকে সতর্ক করবেন। তারপরে পদক্ষেপ করবে কলকাতা পুরসভা।

মেয়র ফিরহাদ হাকিম জানিয়েছেন, ‘যে সমস্ত ভবনের পরিকল্পনা অনুমোদন করা হয়েছে সে সম্পর্কে আমরা তথ্য প্রচার করব। তারপর কাউন্সিলররা সেগুলি খতিয়ে দেখবেন। এরপর বেআইনি বহুতল নিয়ে বরো চেয়ারম্যানকে জানাবেন কাউন্সিলররা। পরে মেয়র এবং পুর কমিশনারকে তা জানাতে হবে। এর পাশাপাশি কাউন্সিলরদের বৈদ্যুতিক লাইনের হুকিং এবং ট্যাপিংয়ের উপরও নজর রাখতে বলেছেন মেয়র। কারণ অবৈধ ভবনগুলিতে প্রায়ই বিদ্যুৎ চুরি করা হয়। এর ফলে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে মৃত্যুর ঘটনা বন্ধ করা যাবে। অবৈধ নির্মাণ নিয়ে কাউন্সিলরদের আরও সতর্ক হতে বলেছেন মেয়র। তিনি বলেন, ‘কাউন্সিলররা মাঝে মধ্যেই তাঁদের ওয়ার্ডে অবৈধভাবে নির্মীয়মাণ ভবন সম্পর্কে অন্ধকারে থাকেন। তাই এই ধরনের কার্যকলাপ রুখতে আমাদের কাউন্সিলরদের আরও সক্রিয় হতে হবে।’ 

পুরসভার আধিকারিকরা জানিয়েছেন, কাউন্সিলররা কোনও নির্দিষ্ট অবৈধ নির্মাণ শনাক্ত করার পর সেটি বিল্ডিং বিভাগ খতিয়ে দেখবে। এরপরে বিল্ডিং বিভাগ এ বিষয়ে থানায় অভিযোগ জানাবে। সেক্ষেত্রে পুলিশের কাছে অবৈধ নির্মাণ ভেঙে ফেলার জন্য সাহায্য চাইবে বিল্ডিং বিভাগ। যদিও বিল্ডিং বিভাগে পর্যাপ্ত কর্মী নেই বলেই অভিযোগ উঠেছে। সূত্রের খবর, বিল্ডিং বিভাগের পরিদর্শকদের সংখ্যা গত কয়েক বছর ধরে হ্রাস পাচ্ছে। ফলে ওয়ার্ডগুলিতে অবৈধ নির্মাণের উপর নজর রাখা পরিদর্শকদের জন্য একটি কঠিন কাজ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এই অবস্থায় কাউন্সিলররা এ বিষয়ে নজরদারি চালালে সুবিধা হবে বলে মনে করছেন আধিকারিকরা।

এক আধিকারিক জানিয়েছেন, অনেক ক্ষেত্রেই পুর ইঞ্জিনিয়াররা অবৈধ নির্মাণ বন্ধ করতে গেলে তাঁদের হুমকির মুখে পড়তে হয়। ফলে এক্ষেত্রে পুলিশের সাহায্য নিতে হয়। এই অবস্থায় অবৈধ নির্মাণ শনাক্ত করার দায়িত্ব কাউন্সিলরদের ওপর থাকলে সেই সমস্যা অনেকটাই কমবে।

এই খবরটি আপনি পড়তে পারেন HT App থেকেও। এবার HT App বাংলায়। HT App ডাউনলোড করার লিঙ্ক https://htipad.onelink.me/277p/p7me4aup

বন্ধ করুন