বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > সিঁথি সার্কাস ময়দানে সরল বাজি বাজার, নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন স্থানীয়রা
প্রতীকি ছবি
প্রতীকি ছবি

সিঁথি সার্কাস ময়দানে সরল বাজি বাজার, নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন স্থানীয়রা

  • সরকারের এই সিদ্ধান্তে শুরু হয়েছে নতুন বিতর্ক। বাজি বাজারে সব সময় অগ্নিকাণ্ডের ঝুঁকি থাকে। একবার মজুত বাজি জ্বলে উঠলে আগুন ভয়াবহ আকার নেয়।

ময়দান থেকে সরল বাজি বাজার। এবার মেলা হবে সিঁথি সার্কাস ময়দানে। শনিবার মেলার আয়োজন নিয়ে বৈঠকের পর এমনই জানিয়েছেন আতসবাজি বিক্রেতাদের সংগঠনের নেতা। এব্যাপারে রাজ্য সরকারের অনুমতি মিলেছে বলেও জানিয়েছেন তিনি। তবে সিঁথি সার্কাস ময়দানে বাজি বাজার স্থানান্তরিত হওয়ায় সেখানকার বাসিন্দাদের নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন উঠে যাচ্ছে।

শনিবার নবান্নে মুখ্যসচিব ও স্বরাষ্ট্রসচিবের সঙ্গে বৈঠক করেন আতসবাজি বিক্রেতাদের সংগঠনের নেতারা। এর পর সংগঠনের সভাপতি বাবলা রায় বলেন, এবার ময়দানে বাজি বাজার হচ্ছে না। রাজ্য সরকারের সঙ্গে আলোচনা করে সিঁথি সার্কাস ময়দানে বাজি বাজার করার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

কিন্তু কেন ময়দান থেকে সরল বাজি বাজার?

আতসবাজি ব্যবসায়ীরা জানাচ্ছেন, ময়দানে মেলার আয়োজনে অনেক খরচ। উলটো দিকে প্রতি বছর বাজি বাজারে বিক্রি কমছে। ময়দানে মেলা করতে গেলে সেনাবাহিনীর কাছ থেকে অনুমতি নিতে প্রচুর টাকা দিতে হয়। বাজি বিক্রি করে টাকা উঠছে না। তাই রাজ্য সরকারের কাছে বিকল্প জায়গার জন্য আবেদন জানিয়েছিলাম। সরকারের তরফে সিঁথি সার্কাস ময়দানে মেলা করতে বলা হয়েছে।

সরকারের এই সিদ্ধান্তে শুরু হয়েছে নতুন বিতর্ক। বাজি বাজারে সব সময় অগ্নিকাণ্ডের ঝুঁকি থাকে। একবার মজুত বাজি জ্বলে উঠলে আগুন ভয়াবহ আকার নেয়। দ্রুত বেলাগাম হয়ে ওঠে আগুন। সেজন্য ময়দানে নির্জন জায়গায় বাজি বাজার করা হত। সিঁথি সার্কাস ময়দানের মতো ঘনবসতিপূর্ণ জায়গায় বাজি বাজার করার অনুমতি দিয়ে কি স্থানীয়দের নিরাপত্তার সঙ্গে আপস করল না সরকার? সেখানে কোনও ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড হলে তার দায় নেবে কে?

 

বন্ধ করুন