বাড়ি > বাংলার মুখ > কলকাতা > করোনা সংক্রমণের আশঙ্কায় বিক্ষোভ কলকাতা পুলিশের কর্মীদের, ছুটে গেলেন কর্তারা
ফাইল ছবি
ফাইল ছবি

করোনা সংক্রমণের আশঙ্কায় বিক্ষোভ কলকাতা পুলিশের কর্মীদের, ছুটে গেলেন কর্তারা

  • বিক্ষোভের খবর পেয়ে বিধাননগর পুলিশ কমিশনারেট থেকে সেখানে পৌঁছন পদস্থ কর্তারা। বিক্ষোভরত পুলিশকর্মীদের সঙ্গে কথা বলেন তাঁরা।

গত ১৯ মে যে আগুন জ্বলেছিল তা যেন নিভছেই না। ফের একবার আধিকারিকদের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে বিক্ষোভ দেখালেন কলকাতা পুলিশের কর্মীরা। শুক্রবার বিকেলে বিধাননগর সেক্টর ওয়ানে কলকাতা আর্মড পুলিশের চার নম্বর ব্যাটেলিয়নের কর্মীরা বিক্ষোভ দেখান। তাঁদের দাবি, করোনা মোকাবিলায় তাদের সামনে ঠেলে দিলেও সুরক্ষাবিধি মানা হচ্ছে না। এমনকী মিলছে না প্রাপ্য ছুটিও। 

বিক্ষোভের খবর পেয়ে বিধাননগর পুলিশ কমিশনারেট থেকে সেখানে পৌঁছন পদস্থ কর্তারা। বিক্ষোভরত পুলিশকর্মীদের সঙ্গে কথা বলেন তাঁরা। 

বলে রাখি, কলকাতা পুলিশে বিক্ষোভের শুরু গত ১৯ মে রাতে। সেদিন কলকাতার পুলিশ ট্রেনিং স্কুল থেকে কলকাতা পুলিশের কমব্যাট ফোর্সের জওয়ানদের ধাওয়া খেয়ে প্রাণ হাতে নিয়ে পালান সেই বাহিনীরই ডিসি। জওয়ানদের অভিযোগ ছিল, তাদের ছুটি দেওয়া হচ্ছে না। করোনা কবলিত এলাকায় সুরক্ষা ছাড়া কাজ করতে হচ্ছে। এছাড়া ক্যান্টিনে খাবারের মান নিয়েও অভিযোগ ছিল তাঁদের। 

ওই রাত থেকেই কলকাতা ও লাগোয়া এলাকায় ঘূর্ণিঝড় আমফানের জেরে বৃষ্টি শুরু হয়। পরদিন নবান্নে যাওয়ার পথে পিটিএস-এর সামনে গাড়ি থেকে নামেন মমতা। সেখানে পুলিশকর্মীরা তাঁদের ক্ষোভ মুখ্যমন্ত্রীর সামনে উজাড় করে দেন। মুখ্যমন্ত্রী আশ্বাস দেন, বিপর্যয় কাটলে তাদের সঙ্গে নিজে এসে কথা বলবেন তিনি। এখনো মুখ্যমন্ত্রীকে সেখানে গিয়ে পুলিশকর্মীদের সঙ্গে কথা বলতে শোনা যায়নি। 

চলতি সপ্তাহে বিক্ষোভ হয় গড়ফা থানায়। সেখানে এক পুলিশকর্মীর বিনা চিকিৎসায় মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ তুলে নিজেদের থানা নিজেরাই ভাঙচুর করেন পুলিশকর্মীরা। তার পর এদিন কলকাতা আর্মড পুলিশের চতুর্থ ব্যাটেলিয়নে বিদ্রোহ। 

 

বন্ধ করুন