ফাইল ছবি
ফাইল ছবি

করোনায় মৃত ১০ জনের দেহ সৎকার করা হয়েছে: কলকাতা পুরসভা

  • সরকারের মুখ বাঁচাতে ফের ময়দানে নামতে মুখ্যসচিবকে।

রাজ্য সরকার করোনায় মৃতদের সংখ্যা ধামাচাপা দিচ্ছে, ফের একবার প্রকট হয়ে উঠল বিরোধীদের এই অভিযোগ। আর এবার নবান্নের মুখ পোড়াল কলকাতা পুরসভার প্রকাশিত করোনায় মৃতদের তালিকা। যে কলকাতা পুরসভা কি না তৃণমূলেরই দখলে। যার মেয়র নবান্নের অন্যতম মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। এবার তারাই কলকাতায় করোনায় মৃত্যু নিয়ে পরিসংখ্যান প্রকাশ করতে মুখ বাঁচাতে ফের সামনে আসতে হল মুখ্যসচিবকে। এই নিয়ে এক সপ্তাহে ২ বার।

কলকাতা ও তার আসেপাশের এলাকায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে যে মৃতদের সৎকার কলকাতা পুরসভা করেছে শুক্রবার তাদের তালিকা প্রকাশ করেছে পুরসভা নিজেই। তার পরই বিবাদ বেঁধেছে রাজ্যে করোনায় মৃতের সংখ্যা নিয়ে। কলকাতা পুরসভার পরিসংখ্যান অনুসারে কলকাতা ও আসেপাশে করোনা আক্রান্ত অবস্থায় ১০ জন মৃতের দেহ সৎকার করেছে তারা। যা রাজ্য সরকার প্রকাশিত গোটা রাজ্যে মোট করোনায় মৃতের সংখ্যার দ্বিগুণ। শুক্রবার বিকেলেও নবান্ন থেকে জানানো হয়েছে, পশ্চিমবঙ্গে করোনায় মৃতের সংখ্যা ৫।

যদিও মুখ্যসচিব রাজীব সিনহা জানিয়েছেন, এই তথ্য প্রকাশের অধিকার কলকাতা পুরসভার নেই। এমনকী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে কারও মৃত্যু হলে তাকে ডেথ সার্টিফিকেট দেওয়ার অধিকারও নেই কলকাতা পুরসভার। এর পর মুখ্যসচিবের দাবি পশ্চিমবঙ্গে করোনায় মৃত ৫ জনই।

কলকাতা পুরসভার তথ্যকে হাতিয়ার করে ফের আক্রমণ শানিয়েছে বিরোধীরা। তাদের দাবি, রাজ্য সরকার সাধারণ মানুষকে করোনার বিপদ থেকে বাঁচানোর বদলে কী করে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা কমিয়ে দেখানো যায় তাতে ব্যস্ত। আর সরকারের চালাকি বার বার ফাঁস হয়ে যাচ্ছে তারই বিভিন্ন লোকের প্রকাশ করা তথ্যে।

গত সপ্তাহে নবান্নে দাঁড়িয়ে রাজ্যে করোনায় মৃতের সংখ্যা ৭ বলে জানায় সরকার নিযুক্ত বিশেষজ্ঞ কমিটি। তার আগের দিনই করোনায় মৃতের সংখ্যা ৩ বলে দাবি করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। এর পরই ময়দানে নামতে হয় মুখ্যসচিবকে। তিনি জানান, করোনায় মৃতের সংখ্যা ৩।




বন্ধ করুন