বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > বিনয় মিশ্রকে গ্রেফতার করা যাবে না, হাইকোর্টের রায়ে স্বস্তি অভিযুক্তের
বিনয় মিশ্র। ফাইল ছবি
বিনয় মিশ্র। ফাইল ছবি

বিনয় মিশ্রকে গ্রেফতার করা যাবে না, হাইকোর্টের রায়ে স্বস্তি অভিযুক্তের

  • কয়লা পাচার কাণ্ডে লিঙ্কম্যান বিনয় মিশ্রকে গ্রেফতার করা যাবে না।

ভাই আগেই জামিন পেয়েছিলেন। নাম–বিকাশ মিশ্র। আর এবার এখনই গ্রেফতার করা যাবে না তার দাদাকেও বলে নির্দেশ দিয়েছে কলকাতা হাইকোর্ট। দাদার নাম—বিনয় মিশ্র। কয়লা পাচার কাণ্ডে লিঙ্কম্যান বিনয় মিশ্রকে গ্রেফতার করা যাবে না। আর তার জেরে স্বস্তি বিনয় মিশ্রের। তবে একটা শর্ত দেওয়া হয়েছে, সিবিআইয়ের জেরার মুখোমুখি হতে হবে তাকে। বৃহস্পতিবার হাইকোর্টের বিচারপতি শুভাশিস দাশগুপ্ত এই নির্দেশ দিয়েছেন।

এদিকে অসুস্থতার কারণে কয়লা পাচার–কাণ্ড মামলায় বিকাশের অন্তর্বর্তী জামিন মঞ্জুর করেছে আসানসোলের সিবিআই আদালত। বুধবার তাকে তিন সপ্তাহের জন্য জামিন দিয়েছেন বিচারক। কয়লা পাচার কাণ্ডে মূল অভিযুক্ত অনুপ মাঝি এবং গরু পাচার কাণ্ডে মূল অভিযুক্ত এনামূল হক—দু’‌জনের সঙ্গেই বিনয় মিশ্রের যোগ থাকার সূত্র পেয়েছে সিবিআই। বিনয় মিশ্রকে একাধিকবার হাজিরা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কিন্তু তিনি হাজিরা এড়িয়ে যান।

উল্লেখ্য, গত মার্চ মাসে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন পাচারে অভিযুক্ত যুব তৃণমূল কংগ্রেস নেতা বিনয় মিশ্র। এই মামলায় তাঁর বিরুদ্ধে এফআইআর বাতিলের আর্জি জানিয়ে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিলেন তিনি। আসানসোলের এক আদালতে বিনয়ের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেছিল সিবিআই। তাছাড়াও তাঁর বিরুদ্ধে লুকআউট সার্কুলার ও ওয়ারেন্ট জারি হয়। সিবিআই সূত্রে খবর, কয়লা পাচার কাণ্ডের অন্যতম অভিযুক্ত বিনয় মিশ্রের ভাই বিকাশ মিশ্র। বিনয়ের ব্যবসা দেখাশোনা করতেন বিকাশ। গত শনিবার অনুপ মাঝি ওরফে লালার মুখোমুখি বসিয়েও জেরা করা হয় বিকাশকে। কিন্তু তেমন কিছু জানা যায়নি।

অন্যদিকে একাধিকবার বিনয়ের বাড়িতে তল্লাশি চালিয়েছেন তদন্তকারীরা। কোথায় গা ঢাকা দিয়ে আছে, তা এখনও জানতে পারেননি তদন্তকারীরা। এরপরই তাঁর গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির জন্য আসানসোল বিশেষ আদালতে আবেদন জানায় সিবিআই। সিবিআই হেফাজতে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন বিনয় মিশ্রের ভাই বিকাশ মিশ্র। শারীরিক অসুস্থতার কথা ভেবে আদালত তাঁরই অন্তবর্তী জামিন মঞ্জুর করেছে। কয়লা কাণ্ডের কিং পিন অনুপ মাঝিকেও একইভাবে রক্ষাকবচ দিয়েছিল সর্বোচ্চ আদালত।

বন্ধ করুন