বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > প্রাণী হত্যার প্রতিবাদে বকরি ইদের দিন থেকে ৭২ ঘণ্টার অনশনে কলকাতার যুবক
প্রাণী হত্যার প্রতিবাদে বকরি ইদের দিন থেকে ৭২ ঘণ্টার অনশনে কলকাতার যুবক। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
প্রাণী হত্যার প্রতিবাদে বকরি ইদের দিন থেকে ৭২ ঘণ্টার অনশনে কলকাতার যুবক। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)

প্রাণী হত্যার প্রতিবাদে বকরি ইদের দিন থেকে ৭২ ঘণ্টার অনশনে কলকাতার যুবক

প্রাণী হত্যা বন্ধ করে ‘‌গ্রিন ইদ’‌ (সবুজ ইদ) পালনের ডাক দিয়েছেন।

আজ বকরি ইদ। ইদের দিন 'প্রাণী হত্যার' প্রতিবাদে সরব হলেন ৩৩ বছরের এক যুবক। মঙ্গলবার রাত থেকেই ৭২ ঘণ্টার জন্য অনশনে বসেছেন কলকাতার এই যুবক। তাঁর মতে, এভাবে প্রাণী হত্যা বন্ধ হোক। উল্টে তিনি প্রাণী হত্যা বন্ধ করে ‘‌গ্রিন ইদ’‌ (সবুজ ইদ) পালনের ডাক দিয়েছেন।

এই প্রসঙ্গে আলতাব হোসেন নামে এই যুবক জানান, 'প্রচুর প্রাণী হত্যার ঘটনা ঘটছে। কিন্তু কেউ এর বিরুদ্ধে কোনও প্রতিবাদ করে না। সেই কারণে আমি ৭২ ঘণ্টার অনশন করে এই ধরনের ঘটনার প্রতিবাদের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। প্রতিটি মানুষকে উপলব্ধী করানো দরকার, প্রাণী হত্যা জরুরি নয়। প্রাণী হত্যা না করেও বেঁচে থাকা যায়। এভাবে প্রাণীহত্যা করা নিষ্ঠুরতারই সামিল।'

উল্লেখ্য, সম্প্রতি আলতাবের বাড়িতে তাঁর ভাই বকরি ইদ উপলক্ষে কুরবানি দেওয়ার জন্য একটি ছাগল নিয়ে আসে। এই দৃশ্য দেখার পরই এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেন এই যুবক। সঙ্গে সঙ্গে তিনি জানিয়ে দেন, প্রাণীহত্যার প্রতিবাদ স্বরূপ তিনি ৩ দিন না খেয়েই থাকবেন।

আলতাবের এই প্রতিবাদ নতুন নয়। ২০১৪ সাল থেকে প্রাণী হত্যার প্রতিবাদে সরব হয়ে আসছেন তিনি। ২০১৪ সালে পশু খামারে প্রাণী হত্যার ভিডিয়ো দেখেছিলেন ওই যুবক। পশুদের হত্যার এই নিষ্ঠুরতা দেখে তিনি মনে মনে সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন, তিনি আর প্রাণী হত্যা করবেন না। সেই সঙ্গে চামড়ার কোনও জিনিস তিনি ব্যবহার করবেন না। আলতাব জানিয়েছেন, তিনি মাছ খাওয়াও ছেড়ে দিয়েছেন। এরপর সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রাণীহত্যার প্রতিবাদ করায় তাঁকে অনেকবার হুমকির মুখেও পড়তে হয়েছে। কিন্তু তাঁকে এভাবে দমানো যাবে না। তবে তিনি জানিয়েছেন, অনেক পশু প্রেমীরাই তাঁর পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন।

বন্ধ করুন