বাড়ি > বাংলার মুখ > কলকাতা > মেডিক্যাল কলেজের হস্টেলে আটকে রেখে ডাক্তারির ছাত্রীকে ধর্ষণে অভিযুক্ত চিকিৎসক
প্রতীকি ছবি
প্রতীকি ছবি

মেডিক্যাল কলেজের হস্টেলে আটকে রেখে ডাক্তারির ছাত্রীকে ধর্ষণে অভিযুক্ত চিকিৎসক

  • প্রথমে তাঁর চিকিৎসক হওয়ার স্বপ্ন শেষ করার হুমকি দেন বলে অভিযোগ। তার পর গোপন ছবি ফাঁস করে দেওয়ার হুমকি দেন তিনি। শেষে খুনেরও হুমকি দেন বলে অভিযোগ।

কলকাতা মেডিক্যাল কলেজের বয়েজ হস্টেলে ডাক্তারির পড়ুয়া এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠল এক চিকিৎসকের বিরুদ্ধে। অভিযোগ, গত মার্চে দিনের পর দিন হস্টেলের ঘরে আটকে রেখে তাঁকে ধর্ষণ করেছেন মেডিক্যাল কলেজের ওই চিকিৎসক। গত ৩১ জুলাই এই মর্মে বউবাজার থানায় অভিযোগ দায়ের করেন তিনি। অভিযোগ অস্বীকার করেছেন অভিযুক্ত চিকিৎসক। 

অভিযোগকারীনির দাবি, প্রথম বর্ষে পড়ার সময় থেকেই ওই চিকিৎসকের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক গড়ে ওঠে। কলকাতার বাসিন্দা হওয়ায় তাঁর হস্টেল পাওয়ার কথা নয়। কিন্তু প্রভাব খাটিয়ে বয়েজ হস্টেলেই তাঁকে থাকার ব্যবস্থা করে দেন ওই চিকিৎসক। এর পর তিনি ওই চিকিৎসকের গতিবিধি সম্পর্কে নানা অভিযোগ পেয়ে সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসতে চান। কিন্তু তাঁকে পালটা ব্ল্যাকমেইল করতে শুরু করেন ওই চিকিৎসক। 

প্রথমে তাঁর চিকিৎসক হওয়ার স্বপ্ন শেষ করার হুমকি দেন বলে অভিযোগ। তার পর গোপন ছবি ফাঁস করে দেওয়ার হুমকি দেন তিনি। শেষে খুনেরও হুমকি দেন বলে অভিযোগ। 

তরুণীর অভিযোগ পেয়ে মঙ্গলবার এসএসকেএম হাসপাতালে তাঁর শারীরিক পরীক্ষা হয়। পুলিশের দাবি, বউবাজার থানার অধীনে অভিযোগ দায়ের হলে তার শারীরিক পরীক্ষা হয় মেডিক্যাল কলেজে। সেক্ষেত্রে প্রভাব খাটিয়ে অভিযুক্ত রিপোর্ট বদলে দিতে পারেন বলে দাবি করেন অভিযোগকারিনী। তার পর এসএসকেএমএ শারীরিক পরীক্ষার ব্যবস্থা করতে সময় লেগেছে। 

ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে বউবাজার থানার পুলিশ। বয়েজ হস্টেলের সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এবিষয়ে কিছু জানা নেই বলে দাবি করেছেন মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ মঞ্জু বন্দ্যোপাধ্যায়। 

 

বন্ধ করুন