বাড়ি > বাংলার মুখ > কলকাতা > গঙ্গার ৩৭ মিটার নীচে সুড়ঙ্গ, ১৫ তলা বাড়ির সমান ভেন্টিলেশন শ্যাফট তৈরি করল মেট্রো
দেশের গভীরতম ভেন্টিলেশন শ্যাফট। ছবি সৌজন্য : টুইটার
দেশের গভীরতম ভেন্টিলেশন শ্যাফট। ছবি সৌজন্য : টুইটার

গঙ্গার ৩৭ মিটার নীচে সুড়ঙ্গ, ১৫ তলা বাড়ির সমান ভেন্টিলেশন শ্যাফট তৈরি করল মেট্রো

  • আপৎকালীন পরিস্থিতিতে এতে তৈরি সিঁড়ির মাধ্যমে সুড়ঙ্গ থেকে যাত্রীদের বের করে আনা সম্ভব হবে। তা ছাড়াও এর মূল কাজ হল, মেট্রোর সুড়ঙ্গে টাটকা বাতাস সরবরাহ করা।

এর আগে নদীর জল ঢুকে দেশের গভীরতম ভেন্টিলেশন শ্যাফট তৈরির কাজ বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। অবশেষে সেই কাজ সম্পন্ন হয়েছে বলে সোমবার জানালেন ইস্ট–ওয়েস্ট মেট্রো কর্তৃপক্ষ। হুগলি নদীর পাশে স্ট্র‌্যান্ড রোডের ধারে ১৫ তলা বাড়ির সমান এই শ্যাফট তৈরি করেছে নির্মাণকারী সংস্থা অ্যাফকন্‌স।

অ্যাফকন্‌সের প্রজেক্ট ম্যানেজার সত্যনারায়ণ কানোয়ার জানান, কুয়োর মতো দেখতে কংক্রিট দিয়ে বাঁধানো এই ভেন্টিলেশন শ্যাফটের গভীরতা ৪৩.‌৫ মিটার। ভেটরের ব্যাস ১০.‌৩ মিটার। জানা গিয়েছে, আপৎকালীন পরিস্থিতিতে এতে তৈরি সিঁড়ির মাধ্যমে সুড়ঙ্গ থেকে যাত্রীদের বের করে আনা সম্ভব হবে। তা ছাড়াও এর মূল কাজ হল, মেট্রোর সুড়ঙ্গে টাটকা বাতাস সরবরাহ করা। এই শ্যাফটের মাধ্যমে ভেতরের দূষিত বাতাস বাইরে বের হয়ে আসবে।

এই ভেন্টিলেশন শ্যাফটের একদিকে মহাকরণ মেট্রো স্টেশন অপরদিকে হুগলি নদী পেরিয়ে হাওড়া স্টেশন। ইস্ট–ওয়েস্ট মেট্রো কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, হাওড়া স্টেশনের পথে যে সুড়ঙ্গ সেটি গঙ্গার জলস্তরের ৩৭ মিটার নীচে। সুড়ঙ্গের সঙ্গে সামঞ্জস্য রাখতেই শ্যাফটটি এত গভীর করে তৈরি করা হয়েছে। জানা গিয়েছে, একই রকম আরেকটি শ্যাফট তৈরি করা হবে রাজা সুবোধ মল্লিক স্কোয়ারের কাছে।

বন্ধ করুন