বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Kolkata Police: আত্মঘাতী মার্কিন নাগরিক, অভিযুক্তদের নাম পাঠালো FBI, ১ জনকে ধরল কলকাতা পুলিশ

Kolkata Police: আত্মঘাতী মার্কিন নাগরিক, অভিযুক্তদের নাম পাঠালো FBI, ১ জনকে ধরল কলকাতা পুলিশ

মার্কিন নাগরিকের মৃত্যুর ঘটনায় কলকাতা থেকে গ্রেফতার যুবক। (প্রতীকী ছবি)

একাকী ওই মার্কিন বৃদ্ধ শেষ বয়সের সম্বল হিসেবে ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে জমা রেখেছিলাম ৮৬ হাজার ডলার বা ভারতীয় মুদ্রায় ৭১ লক্ষ টাকা। মাসখানেক আগে সেই টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ ওঠে। এফবিআই তদন্তে নেমে জানতে পারে সাইবার প্রতারকরা ‘টেক্সট নাউ’ নামে একটি অ্যাপ ব্যবহার করে ওই বৃদ্ধকে ফোন করে।

৯১ বছর বয়সি মার্কিন নাগরিকের এক মৃত্যুর ঘটনায় কলকাতার এক যুবককে গ্রেফতার করল পুলিশ। অভিযোগ উঠেছে ওই যুবকের কাছে সাইবার প্রতারণার শিকার হয়েছিলেন ওই মার্কিন নাগরিক। এরপরে আমেরিকার তদন্তকারী সংস্থা এফবিআই ইন্টারপোলের সাহায্যে কলকাতা পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করে। সেই ঘটনায় বেনিয়াপুকুরের বাসিন্দা ওই যুবককে গ্রেফতার করে কলকাতা পুলিশ। ধৃতের নাম শিজান আলি হায়দার। এফবিআই কলকাতা পুলিশকে ১১ জনের তালিকা পাঠিয়েছে। এর মধ্যে বাকি ১০ জনের খোঁজ চালানো হচ্ছে।

কীভাবে হল প্রতারণা?

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, একাকী ওই মার্কিন বৃদ্ধ শেষ বয়সের সম্বল হিসেবে ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে জমা রেখেছিলেন ৮৬ হাজার ডলার বা ভারতীয় মুদ্রায় ৭১ লক্ষ টাকা। মাসখানেক আগে সেই টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ ওঠে। মার্কিন তদন্তকারী সংস্থা এফবিআই তদন্তে নেমে জানতে পারে সাইবার প্রতারকরা ‘টেক্সট নাউ’ নামে একটি অ্যাপ ব্যবহার করে ওই বৃদ্ধকে ফোন করে। সে কম দামে বৃদ্ধকে তাঁর প্রয়োজনীয় একটি সফটওয়্যার বিক্রির প্রতিশ্রুতি দেয়। সেই সফটওয়্যার বিক্রির নামে বৃদ্ধের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে সমস্ত টাকা হাতিয়ে নেয় সাইবার প্রতারকরা। এদিকে শেষ বয়সে একমাত্র সম্বলটুকু হারিয়ে অবসাদে আত্মঘাতী হয়েছিলেন ওই বৃদ্ধ। ঘটনার তদন্ত নেমে এফবিআই জানতে পারে সাইবার প্রতারকরা ভারতের বাসিন্দা। কারা ওই বৃদ্ধকে ফোন করেছিল তা শনাক্ত করে এফবিআই। এরপরে ইন্টারপোলের সাহায্যে কলকাতা পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করে ১১ জনের নামের একটি তালিকা পাঠায়।

সেই তালিকা পাওয়ার পরে তৎপরতার সঙ্গে তদন্ত শুরু করে কলকাতা পুলিশ। অবশেষ শিজানকে পুলিশ শনাক্ত করে এবং তোপসিয়ার কুষ্টিয়া রোডে একটি ক্যাফে থেকে তাকে গ্রেফতার করে। জানা গিয়েছে, কলকাতার একটি নামী কলেজ থেকে বিকম পাশ করেছে ওই যুবক। তার সঙ্গে আরও কারা কারা জড়িত রয়েছে তা জানার জন্য তাকে নিজেদের হেফাজতে নিয়েছে কলকাতা পুলিশ। যেহেতু এই প্রতারণার সঙ্গে মার্কিন নাগরিকের মৃত্যুর ঘটনা জড়িত তাই কলকাতা পুলিশের কর্তাদের সঙ্গে মার্কিন দূতাবাসের আধিকারিকরা বৈঠকে বসতে পারেন বলে জানা গিয়েছে।

বন্ধ করুন