বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > করোনা সংক্রমণ বাহিনীতে, পুলিশের জন্য পৃথক প্যাথলজি, ওষুধের দোকান চালু লালবাজারের
করোনা সংক্রমণ বাহিনীতে, পুলিশের জন্য পৃথক প্যাথলজি, ওষুধের দোকান চালু লালবাজারের (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্যে সমীর জানা/হিন্দুস্তান টাইমস)
করোনা সংক্রমণ বাহিনীতে, পুলিশের জন্য পৃথক প্যাথলজি, ওষুধের দোকান চালু লালবাজারের (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্যে সমীর জানা/হিন্দুস্তান টাইমস)

করোনা সংক্রমণ বাহিনীতে, পুলিশের জন্য পৃথক প্যাথলজি, ওষুধের দোকান চালু লালবাজারের

  • যেখানে পুলিশ কর্মী এবং আধিকারিকরা করোনা পরীক্ষা করার পাশাপাশি কম দামে ওষুধ কিনতে পারবেন।

রাজ্যে করোনা পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ বাড়ছে স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের। প্রতিদিনই হাজার হাজার মানুষ নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন। সেইসঙ্গে কলকাতা পুলিশের মধ্যেও বাড়ছে করোনার সংক্রমণ। কলকাতা পুলিশের বহু কর্মী এবং আধিকারিকের শরীরে থাবা বসিয়েছে করোনা। এই পরিস্থিতিতে বাড়তি সতর্কতা অবলম্বন করছে কলকাতা পুলিশ।

থানা, ট্র্যা ফিক গার্ডগুলি ঘন ঘন স্যানিটাইজারের পাশাপাশি প্যাথলজি সেন্টার এবং ওষুধের দোকানেরও ব্যবস্থা করেছে লালবাজার। যেখানে পুলিশ কর্মী এবং আধিকারিকরা করোনা পরীক্ষা করার পাশাপাশি কম দামে ওষুধ কিনতে পারবেন। পুলিশ আধিকারিকদের যাতে বাইরে থেকে ওষুধ কিনতে না হয়, সেজন্য দুটি ওষুধের দোকান তৈরি করেছে কলকাতা পুলিশ। সল্টলেকের চতুর্থ ব্যাটেলিয়নের আবাসন এবং বিটি রোডের পুলিশ লাইনে এই ওষুধের দোকান তৈরি করা হয়েছে। এই দোকান থেকে পুলিশকর্মী আধিকারিক চুক্তিভিত্তিক পুলিশকর্মীরা ২৪ শতাংশ ছাড়ে ওষুধ কিনতে পারবেন। কলকাতা পুলিশ ওয়েলফেয়ার বোর্ডের পক্ষ থেকে এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। সেইসঙ্গে ট্র্যাফিক গার্ড এবং থানাগুলি নিয়মিত স্যানিটাইজ করার ব্যবস্থা করেছে লালবাজার।

পুলিশকর্মীদের ভিড় এড়িয়ে যাওয়ার পাশাপাশি সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা, মাস্ক পরা, স্যানিটাইজ এবং গ্লাভস ব্যবহার করার নির্দেশ দিয়েছে লালবাজার। অন্যদিকে আলিপুর বডিগার্ড লাইনে এই প্যাথলজি সেন্টার তৈরি করেছে কলকাতা পুলিশ। আধিকারিক এবং কর্মীদের মধ্যে সংক্রমণ রুখতে সব রকম ভাবে তৎপর লালবাজার।

বন্ধ করুন