বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > পুলিশ কেন বর্ষপূর্তির মিছিল ঢুকতে দিল না?‌ প্রশ্ন ক্যানসার আক্রান্ত আসমতের‌
আবার পার্ক সার্কাসের মাঠে ধর্না শুরু হোক, চায়নি কলকাতা পুলিশ তথা পশ্চিমবঙ্গ প্রশাসন।
আবার পার্ক সার্কাসের মাঠে ধর্না শুরু হোক, চায়নি কলকাতা পুলিশ তথা পশ্চিমবঙ্গ প্রশাসন।

পুলিশ কেন বর্ষপূর্তির মিছিল ঢুকতে দিল না?‌ প্রশ্ন ক্যানসার আক্রান্ত আসমতের‌

  • ২০২১ সালের বিধানসভা ভোটের প্রাক্কালে বোঝা যাচ্ছে নাগরিকত্ব আইনের নামে বিভাজন–বিরোধী সেই প্রতিবাদ এখনও সমান প্রাসঙ্গিক।

পার্ক সার্কাস সাতমাথার মোড়ে নামজাদা বিরিয়ানি রেস্তরাঁর সামনে তখন ভিড় জমেছে। ঠিক এক বছর আগে আসমতের ডাকেই শুরু হয়েছিল দিল্লির শাহিন বাগের আদলে পার্ক সার্কাসের ‘আন্দোলন’। ২০২১ সালের বিধানসভা ভোটের প্রাক্কালে বোঝা যাচ্ছে নাগরিকত্ব আইনের নামে বিভাজন–বিরোধী সেই প্রতিবাদ এখনও সমান প্রাসঙ্গিক।

আবার পার্ক সার্কাসের মাঠে ধর্না শুরু হোক, তা চায়নি কলকাতা পুলিশ তথা রাজ্য প্রশাসন। তাই সেই আন্দোলনের বর্ষপূর্তির দিনে অনেক কিছুই পাল্টেছে। ফুসফুসের ক্যানসারে কাহিল আসমতের শরীরটা ভাল নেই। এক দিন আগেই রক্ত নিতে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। এবার সেখান থেকেই মিছিলে যোগ দেন তিনি।

এবার দেখা গেল, মল্লিকবাজার মোড় থেকে আসমতকে সামনে রেখে পার্ক সার্কাসের মেয়েদের মিছিল শুরুর মুহূর্তেই পথ আটকে দিল পুলিশ। আসমতকে তারা বলে, আপনি যেখানে খুশি যান, মিছিল যেতে দেওয়া যাবে না। আসমত বলেন, ‘আমার সঙ্গে গোটা বাংলা রয়েছে। এটাই আমার পরিবার। একা যাব না।’ অবশেষে সাত মাথার মোড়ে বিরিয়ানির দোকান পর্যন্ত এগোতে দেয় মিছিল। হুইলচেয়ারে চেপেই মিছিলে থাকেন আসমত। তাঁর হাতে ছিল দিল্লি সীমানায় কৃষক আন্দোলনের প্রতি সংহতির মন্ত্র।

এখান থেকে বহুত্ববাদী সুরটাই তুলে ধরা হয়েছিল। মিছিলের পুরোভাগে পার্ক সার্কাস, খিদিরপুর, হাওড়া পিলখানার মুসলিম মেয়েদের পাশেই তৃতীয় লিঙ্গভুক্ত রূপান্তরকামী মেয়ে, পুরুষের ঝাঁক। তাঁদের মধ্যে অনুরাগ মৈত্রের আবেগঘন আবৃত্তি গায়ের রোম খাড়া করে দিল। উমর খালিদের ছবি বুকে হাঁটছিলেন প্রবীণ দীপ্তি লাহিড়ী, সুনন্দা দাস প্রমুখ। কারারুদ্ধ ভারভারা রাও, স্ট্যান স্বামীরাও পোস্টারে পোস্টারে এই মিছিলের মুখ। কিন্তু প্রশ্ন উঠল, কেন পার্ক সার্কাসে ঢুকতে দিল না মিছিল?‌

বন্ধ করুন