বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > মাস্ক না পরলেই সাজা! করোনা রুখতে কঠোর কলকাতা পুলিশ, দু'দিনে ৮৬৫ জনের নামে মামলা
কলকাতা পুলিশ। ফাইল ছবি
কলকাতা পুলিশ। ফাইল ছবি

মাস্ক না পরলেই সাজা! করোনা রুখতে কঠোর কলকাতা পুলিশ, দু'দিনে ৮৬৫ জনের নামে মামলা

  • করোনা রুখতে বার ও রেস্তোরাঁ রাত সাড়ে ১০টার মধ্যে বন্ধ করতে বলা হয়েছে। গত ৪৮ ঘন্টায় মাস্ক না জন্য প্রায় ৮০০ জনেরও বেশি লোকের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।

মাস্ক না পরার জন্য নাগরিকদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে শুরু করেছে কলকাতা পুলিশ। দুর্গা পুজোর পরে শহরে প্রতিদিন কোভিড সংক্রমিতের সংখ্যা বেড়ে চলেছে। কলকাতা পুলিশের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, রবিবার মাস্ক না পরার জন্য ৪৪৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। সোমবার একই কারণে অন্তত ৪১৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।

এই বিষয়ে কলকাতা পুলিশের এক শীর্ষ কর্তা হিন্দুস্তান টাইমসকে বলেন, 'আমরা অপরাধীদের বিরুদ্ধে নজরদারি জোরদার করেছি। রাত ১১টা থেকে ভোর ৫টা পর্যন্ত নাইট কার্ফু। দুর্গা পুজোর জন্য নাইট কার্ফু ১০ দিনের জন্য প্রত্যাহার করা হয়েছিল। তবে তা আবার জারি করা হয়েছে এবং রাতে নাকা চেকিং কঠোর করা হয়েছে। বার ও রেস্তোরাঁ রাত সাড়ে ১০টার মধ্যে বন্ধ করতে বলা হয়েছে। গত ৪৮ ঘন্টায় মাস্ক না পরার জন্য ৮০০ জনেরও বেশি লোকের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।'

পুজোর পর ফের একবার করোনা গ্রাফ ঊর্ধ্বমুখী হওয়ায় জারি করা হয়েছে নাইট কার্ফু। শুক্রবার রাত থেকেই জারি হয়েছে নয়া নিয়ম। কার্ফু চলাকালীন বাসিন্দাদের থাকতে হবে গৃহবন্দি। একান্ত প্রয়োজন না হলে কেউই বাড়ির বাইরে বেরোতে পারবেন না।

এদিকে করোনার বাড়বাড়ন্ত ঠেকাতে রাজ্যে বেশ কয়েকটি মাইক্রো-কনটেনমেন্ট জোন ঘোষণা করা হয়েছে ইতিমধ্যেই। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সল্টলেক, দমদম, বারাসতের বেশকিছু এলাকাকে মাইক্রো কনটেনমেন্ট জোন হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। এই তালিকায় রয়েছে উত্তর ২৪ পরগনা, হাওড়া, জলপাইগুড়ির বেশকিছু এলাকা। এই একই পথে এবার হাঁটতে চলেছে কলকাতাও। মাইক্রো কনটেনমেন্ট জোনের বাসিন্দাদের ১৪ দিন যাতায়াতে বিধিনিষেধ থাকবে। কেউ মনে করলে আরটিপিসিআর টেস্ট করে বাইরে বের হতে পারবেন।

বন্ধ করুন