বাড়ি > বাংলার মুখ > কলকাতা > করোনা জুজু, উপসর্গ থাকা ধৃতদের জন্য ‘আইসোলেশন লকআপ’-এর পরিকল্পনা কলকাতা পুলিশের
‘আইসোলেশন লকআপ’-এর পরিকল্পনা কলকাতা পুলিশের (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য কলকাতা পুলিশের ফেসবুক)
‘আইসোলেশন লকআপ’-এর পরিকল্পনা কলকাতা পুলিশের (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য কলকাতা পুলিশের ফেসবুক)

করোনা জুজু, উপসর্গ থাকা ধৃতদের জন্য ‘আইসোলেশন লকআপ’-এর পরিকল্পনা কলকাতা পুলিশের

  • নয়া পরিকল্পনা করছে কলকাতা পুলিশ।

ধৃতদের করোনাভাইরাস উপসর্গ দেখা দিলে কী করা হবে? তা নিয়ে ধন্দে পড়েছিল কলকাতা পুলিশ। তাই এবার ‘আইসোলেশন লকআপ’ চালুর পরিকল্পনা করছে লালবাজার। করোনা উপসর্গ থাকা ধৃতদের সেখানে রাখা হবে।

আরও পড়ুন : অগস্টে রাজ্যে কবে কবে সম্পূর্ণ লকডাউন, দেখে নিন তালিকা

গত ১৮ জুলাই একটি প্রতারণা চক্রের অন্যতম মাথা হিসেবে একজনকে গ্রেফতার করে কলকাতা পুলিশ। আদালতে তোলা হলে তাকে পুলিশি হেফাজতে পাঠানো হয়। জেরা চলাকালীন ২২ জুলাই তার করোনার উপসর্গ দেখা দেয়। তারপর তাকে আইসোলেশনে রেখে পরদিন টেস্ট করানো হয়। রিপোর্ট পজিটিভ এলে তাকে ভরতি করা হয় মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে। তার জেরে লালবাজারের গোয়েন্দা বিভাগের ১২ জনের বেশি পুলিশ আধিকারিককে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে। এক আধিকারিকের রিপোর্ট ইতিমধ্যে পজিটিভ এসেছে।

আরও পড়ুন : সুশান্তের মৃত্যুর তদন্ত: অন্তর্বর্তীকালীন জামিনের আবেদন জানাচ্ছেন রিয়া চক্রবর্তী

তারপরই নড়েচড়ে বসেছে লালবাজার। কলকাতা পুলিশের এক শীর্ষকর্তা বলেন,  ‘আমরা সদর দফতরে আইসোলেশন লকআপ তৈরির পরিকল্পনা করছি। করোনার উপসর্গ ধরা পড়লে সেখানে কোয়ারেন্টাইন করা হবে এবং অন্য ধৃতদের থেকে আলাদা রাখা হবে।’ 

আরও পড়ুন : মোট করোনা কেসের সংখ্যা ১৫ লক্ষ ছাড়াল, মৃত ৩৪১৯৩

তবে কলকাতা পুলিশের সব থানায় সেই আইসোলেশন লকআপ তৈরি করা কি সম্ভব হবে? পুলিশের কর্তারা জানিয়েছেন, আইসোলেশন লকআপের জন্য স্থানীয় থানাগুলিকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করতে বলা হয়েছে। তবে সব থানায় হয়তো সেই লকআপ করার প্রয়োজনীয় পরিকাঠামো নেই বলে জানিয়েছেন আধিকারিকরা।

বন্ধ করুন