বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Kolkata police: পুলিশের কাছ থেকে বিদায় নিতে চলেছে ‘থ্রি নট থ্রি’, আসছে এক্সক্যালিবার
থ্রি নট থ্রি রাইফেল।

Kolkata police: পুলিশের কাছ থেকে বিদায় নিতে চলেছে ‘থ্রি নট থ্রি’, আসছে এক্সক্যালিবার

  • পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, প্রায় দেড় হাজার থ্রি নট থ্রি রাইফেল বাতিল করে নতুন রাইফেল পুলিশ কর্মীদের হাতে তুলে দেওয়া হচ্ছে অত্যাধুনিক এই রাইফেল। এক মিনিটে ৬০০ রাউন্ড গুলি ছুড়তে সম্ভব নতুন এই রাইফেল। এর সাহায্যে যে কোনও পরিস্থিতির মোকাবেলা করা সম্ভব।

বিদায় নিতে চলেছে ‘শর্ট ম্যাগাজিন লি এনফিল্ড রাইফেল’ বা থ্রি নট থ্রি রাইফেল। তার বদলে এবার কলকাতা পুলিশ কর্মীদের দেওয়া হচ্ছে ইছাপুর রাইফেল ফ্যাক্টরিতে তৈরি এক্সক্যালিবার রাইফেল। ইতিমধ্যেই অত্যাধুনিক এই রাইফেল পৌঁছে গিয়েছে লালবাজারে। এখনও পর্যন্ত ১০৪০ টি এক্সক্যালিভার রাইফেল লালবাজারে পৌঁছেছে। আগামী সময় আরও ৩০০ টি রাইফেল পৌঁছবে।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, প্রায় দেড় হাজার থ্রি নট থ্রি রাইফেল বাতিল করে নতুন রাইফেল পুলিশ কর্মীদের হাতে তুলে দেওয়া হচ্ছে অত্যাধুনিক এই রাইফেল। এক মিনিটে ৬০০ রাউন্ড গুলি ছুড়তে সম্ভব নতুন এই রাইফেল। এর সাহায্যে যে কোনও পরিস্থিতির মোকাবেলা করা সম্ভব। লালবাজার সুত্রের খবর, প্রায় ৮ হাজার পুলিশ কর্মী থ্রি নট থ্রি রাইফেল নিয়ে ডিউটি করেন। ইছাপুর ফ্যাক্টরি থেকে যেভাবে রাইফেল সরবরাহ করা হচ্ছে সেইভাবে তা পুলিশ কর্মীদের হাতে তুলে দেওয়া হচ্ছে। তবে নতুন এই রাইফেল মূলত পাবেন সশস্ত্র বাহিনীর কর্মী এবং সেন্ট্রি ডিউটিতে থাকা পুলিশ কর্মীরা।

প্রসঙ্গত, থ্রি নট থ্রি রাইফেল তৈরি হয়েছিল ব্রিটিশ আমলে। জেমস পারিশ লি নামে এক মার্কিন ব্যক্তি এই রাইফেল তৈরি করেছিলেন। তার নামেই এই রাইফেলের নামকরণ হয়েছিল। সিপাহী বিদ্রোহ,প্রথম বিশ্বযুদ্ধে ব্রিটিশরা এই রাইফেল ব্যবহার করেছিল। এই রাইফেলের কার্তুজ ০.৩০৩ বোরের হাওয়ায় ক্রমেই তার চলতি নাম হয়ে ওঠে থ্রি নট থ্রি। এই রাইফেলের সাহায্যে এক মিনিটে ১০ টি গুলি চালানো যায়। তাছাড়া এই রাইফেলের ওজনও অনেকটাই বেশি।

তাই আধুনিকতার সঙ্গে তাল মিলিয়ে এবং বর্তমান পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে এই পুরনো প্রযুক্তির রাইফেলকে বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে লালবাজার। নতুন রাইফেলের জন্য প্রতিটি রাইফেল পিছু ৮০ হাজার টাকা খরচ হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। এর ফলে কম সময়ে গুলি ছোড়া সম্ভব হবে। এ বিষয়ে পুলিশের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, ইছাপুর রাইফেল ফ্যাক্টরি যেভাবে রাইফেল সরবরাহ করবে সেই অনুযায়ী পুলিশ কর্মীদের নতুন রাইফেল দেওয়া হবে। যদিও রাজ্য পুলিশে আগে থেকেই এই প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গিয়েছে।

বন্ধ করুন