বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Lalbazar: মহানগরে দুর্গাপুজোর ভিড় পুলিশ সামলাবে কেমন করে?‌ বিশেষ পদক্ষেপ করল লালবাজার

Lalbazar: মহানগরে দুর্গাপুজোর ভিড় পুলিশ সামলাবে কেমন করে?‌ বিশেষ পদক্ষেপ করল লালবাজার

মানুষের ভিড় এবং যান নিয়ন্ত্রণ

আবার দুর্গাপুজোর আগে অপরাধ রুখতে স্পেশাল ড্রাইভের ব্যবস্থা করা হয়েছে। ইতিমধ্যেই শহরজুড়ে অভিযান চালিয়ে ১৩৪ জনকে বিভিন্ন মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে। আগে দায়ের হওয়া মামলায় ৪০ জনকে গ্রেফতার করেছে গুণ্ডাদমন শাখা। রাতের শহরে বিশৃঙ্খলা, অসভ্য আচরণের জন্য ৫৩৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে কলকাতা পুলিশ।

আজ তৃতীয়া। দুর্গাপুজোর প্রস্তুতি শেষ সর্বত্র। পুজোমণ্ডপ প্রস্তুত দর্শনার্থীদের স্বাগত জানাতে। কিন্তু মহানগরে যে ভিড় হবে তা পুলিশ সামলাবে কেমন করে?‌ এই প্রশ্ন উঠতেই জানা গেল, রাত পোহালেই শহরের পুজো সামলাতে মাঠে নামছে কলকাতা পুলিশ। চতুর্থী থেকে মানুষের ভিড় এবং যান নিয়ন্ত্রণে মোট ৯ হাজার পুলিশ মোতায়েন করছে লালবাজার। তার মধ্যে চার হাজার পুলিশ থাকবে যান নিয়ন্ত্রণের দায়িত্বে। পুলিশ বাহিনীকে সহযোগিতা করতে থাকছে ১০ হাজার ‘টেম্পোরারি’ হোমগার্ড। শহরের সমস্ত বড় মোড়গুলিতে থাকবেন অ্যাসিস্ট্যান্ট কমিশনার এবং ইনস্পেক্টর পদমর্যাদার পুলিশ অফিসাররা। গোটা বিষয়টি কন্ট্রোল রুম থেকে তদারকি করবেন লালবাজারের পদস্থ কর্তারা।

ঠিক কী বলছেন পুলিশ কমিশনার?‌ মঙ্গলবার আলিপুর বডিগার্ড লাইনে পুলিশদের দুর্গাপুজো নিয়ে বার্তা দেন পুলিশ কমিশনার বিনীত গোয়েল। তিনি বলেন, ‘‌দুর্গাপুজোয় শহর যেন সচল থাকে। যানজট রুখতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে। সব রাস্তাকেই সমান গুরুত্ব দিয়ে দেখতে হবে। অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে সুষ্ঠুভাবে ভিড় নিয়ন্ত্রণ করতে হবে।’‌

আর কী জানা যাচ্ছে?‌ লালবাজার সূত্রে খবর, চতুর্থী থেকেই দুটি দলে ভাগ করা হচ্ছে ৯ হাজার পুলিশকে। প্রথম দলের দায়িত্ব যান নিয়ন্ত্রণ করা। চতুর্থী থেকেই শহরের বিভিন্ন রাস্তায় পার্কিং বন্ধ করে দেওয়া হবে। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল রাসবিহারী অ্যাভিনিউ। এখানে পার্কিং নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এছাড়াও বিকল্প পার্কিং–সহ ট্রাফিক সংক্রান্ত যাবতীয় ব্যবস্থা আগাম সেরে রাখবে প্রথম দলটি। তার জন্য মোট ৪ হাজার পুলিশকে শহরের মহানগরে নামাচ্ছে ট্রাফিক বিভাগ। অ্যাসিস্ট্যান্ট কমিশনার, ইনস্পেক্টর, সার্জেন্ট পদমর্যাদার অফিসার–সহ কনস্টেবলরা এই দায়িত্বে থাকবেন। দ্বিতীয় টিমকে বলে হচ্ছে ‘হোমোজিনিয়াস ফোর্স’। যাঁরা সংখ্যায় পাঁচ হাজার। ভিড় নিয়ন্ত্রণ এবং যানবাহন সচল রাখতে মোতায়েন করা হচ্ছে তাঁদের। সমস্ত বড় পুজো প্রাঙ্গণে থাকছে পুলিশের অস্থায়ী কিয়স্ক। দর্শনার্থীদের সহায়তার জন্যও রাস্তায় থাকবেন পুলিশের টিম। শহরের সমস্ত বড় পুজোর প্রবেশ পথ ও বাহির পথে হাজির থাকবেন তাঁরা।

কী জানা যাচ্ছে ট্র‌্যাফিক বিভাগ থেকে?‌ কলকাতা পুলিশের ট্রাফিক বিভাগ সূত্রে খবর, এবার বেপরোয়া মোটরবাইক ধরতে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। শহরের বিভিন্ন রাস্তায় নাকা চেকিং করবে ১৬টি টিম। হেলমেট ছাড়া মোটরবাইক চালালে রেহাই নেই বলে জানিয়েছেন ডেপুটি কমিশনার ট্রাফিক সুনীলকুমার যাদব। আবার দুর্গাপুজোর আগে অপরাধ রুখতে স্পেশাল ড্রাইভের ব্যবস্থা করা হয়েছে। ইতিমধ্যেই শহরজুড়ে অভিযান চালিয়ে ১৩৪ জনকে বিভিন্ন মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে। আগে দায়ের হওয়া মামলায় ৪০ জনকে গ্রেফতার করেছে গুণ্ডাদমন শাখা। রাতের শহরে বিশৃঙ্খলা, অসভ্য আচরণের জন্য ৫৩৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে কলকাতা পুলিশ। ২০০ লিটার দেশি মদ উদ্ধার করা হয়েছে।

বন্ধ করুন