১৫০ বছরের প্রাচীন কলকাতা পোর্ট ট্রাস্টের দখলে থাকা মোট জমির পরিমাণ ছিল অধুনা দুর্দশাপ্রাপ্ত লন্ডন ডকইয়ার্ডের প্রায় সমান।
১৫০ বছরের প্রাচীন কলকাতা পোর্ট ট্রাস্টের দখলে থাকা মোট জমির পরিমাণ ছিল অধুনা দুর্দশাপ্রাপ্ত লন্ডন ডকইয়ার্ডের প্রায় সমান।

পড়ে থাকা জমি লিজ দেওয়ায় উদ্যোগী কলকাতা পোর্ট ট্রাস্ট

  • পোর্ট ট্রাস্টের মালিকানায় রয়েছে মোট ৪,৫০০ একর (১৮ বর্গ কিমি) জমি। এর মধ্যে মাত্র ২,০০০ একর জমি সরাসরি কাজে লাগে সংস্থার।

পড়ে থাকা জমি থেকে ফায়দা তুলতে এবার উদ্যোগী হল কলকাতা পোর্ট ট্রাস্ট। সেই উদ্দেশে জমি জরিপ করার ভার দেওয়া হল বেসরকারি সংস্থা জেএলএল ইন্ডিয়াকে।

কলকাতা পোর্ট ট্রাস্টের চেয়ারম্যান এই খবর জানিয়ে বলেন, পোর্ট ট্রাস্টের মালিকানায় রয়েছে মোট ৪,৫০০ একর (১৮ বর্গ কিমি) জমি। এর মধ্যে মাত্র ২,০০০ একর জমি সরাসরি কাজে লাগে সংস্থার।

চেয়ারম্যান জানিয়েছেন, ‘আমরা এই জমি ব্যাঙ্ককে কাজে লাগাতে চাই। এই সিদ্ধান্তের পিছনে মূল উদ্দেশ্য হল কর্ম পদ্ধতির উন্নয়ন, ক্ষমতা বৃদ্ধি এবং বৈচিত্রকরণ।’

অতীতে ১৫০ বছরের প্রাচীন কলকাতা পোর্ট ট্রাস্টের দখলে থাকা মোট জমির পরিমাণ ছিল অধুনা দুর্দশাপ্রাপ্ত লন্ডন ডকইয়ার্ডের প্রায় সমান। ১৯৭০ সাল নাগাদ সেই জমির কিছু অংশ প্রথম লিজ দেয় পোর্ট। সেই জমির উপরেই এখন রয়েছে ক্যানারি হোয়ার্ফ প্রকল্প। এবার অব্যবহৃত আরও জমি বিক্রি করে লাভের মুখ দেখতে চাইছে সংস্থা।

তবে গত বছর থেকে বাণিজ্যিক মুনাফার স্বাদ পেতে শুরু করেছে পোর্ট ট্রাস্ট। ১৫ বছরের মধ্যে এই প্রথম ৬০ কোটি টাকা লাভ করেছে সংস্থা।

চলতি অর্থবছরে মাল পরিবহনের হার অন্তত ৩% বৃদ্ধি পাবে বলে মনে করছে ট্রাস্ট কর্তৃপক্ষ। গত অর্থবছরে ১০% মাল পরিবহণের হার বাড়লেও এবার করোনাভাইরাসের প্রকোপে তাতে ভাটা দেখা দিয়েছে বলে তাঁরা জানিয়েছেন।

বন্ধ করুন