বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > পিছনের দরজা দিয়ে নাক গলাচ্ছে, BSF'র নয়া ক্ষমতা প্রসঙ্গে কেন্দ্রকে তোপ কুণালের
তৃণমূলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ (‌ছবি সৌজন্য এএনআই)‌
তৃণমূলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ (‌ছবি সৌজন্য এএনআই)‌

পিছনের দরজা দিয়ে নাক গলাচ্ছে, BSF'র নয়া ক্ষমতা প্রসঙ্গে কেন্দ্রকে তোপ কুণালের

  • পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী চরণজিৎ সিং চুন্নীও টুইট করে এই নির্দেশকে অযৌক্তিক ও তা প্রত্যাহারের দাবি তুলেছেন।

রাজ্যের অধিকারভুক্ত এলাকায় পেছনের দরজা দিয়ে নাক গলাচ্ছে। কেন্দ্রের নয়া বিএসএফ নীতি নিয়ে এবার সরব তৃণমূল নেতা কুণাল ঘোষ। এনিয়ে টুইটও করেছেন তিনি। এবার দেখা যাক ঠিক কী লিখেছেন তিনি টুইটে? তিনি লিখেছেন, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক যেভাবে বিএসএফের কর্মক্ষেত্র ১৫ কিলোমিটার থেকে বাড়িয়ে ৫০ কিলোমিটার করেছে তা প্রতিবাদযোগ্য। এটা রাজ্যের অধিকারভূক্ত এলাকায় পিছনের দরজা দিয়ে নাক গলানো। তৃণমূল কংগ্রেস এই বিষয়ে গুরুত্ব দিয়ে খতিয়ে দেখছে। যথাযথভাব বক্তব্য জানানো হবে। লিখেছেন তৃণমূলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ।

আসলে পশ্চিমবঙ্গ সহ দেশের তিন রাজ্যে বিএসএফের কাজের পরিধিতে কিছুটা পরিবর্তন আনা হচ্ছে। বলা ভালো তাদের হাতে বিশেষ ক্ষমতা তুলে দেওয়া হচ্ছে। নয়া নির্দেশিকায় বিএসএফের হাতে গ্রেফতারি, তল্লাশি ও বাজেয়াপ্তের বিশেষ ক্ষমতা দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। শুধু তাই নয়, এবার থেকে আন্তর্জাতিক সীমান্ত থেকে ভারতীয় ভূখণ্ডের ৫০ কিলোমিটার পর্যন্ত এলাকায় বিএসএফ তাদের ক্ষমতা প্রয়োগ করতে পারবে। যেটা এতদিন তারা পারত না।

ওয়াকিবহাল মহলের মতে, কেন্দ্রের এই নয়া সিদ্ধান্তে স্থানীয় পুলিশের সঙ্গে বিএসএফের সংঘাত বাড়তে পারে। রাজ্য পুলিশের আওতায় থাকা এলাকায় গিয়ে কাউকে গ্রেফতারি বা কোথাও তল্লাশি চালানোর সময় স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গেও বিএসএফের বিরোধ তৈরি হতে পারে। সেই বিরোধ মেটাতে স্থানীয় থানা কতটা সহযোগিতা করবে সেই প্রশ্নও উঠছে। এদিকে এনিয়ে ইতিমধ্যে বিরোধী শিবির থেকে আওয়াজ উঠতে শুরু করেছে। পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী চরণজিৎ সিং চুন্নীও টুইট করে এই নির্দেশকে অযৌক্তিক ও তা প্রত্যাহারের দাবি তুলেছেন। 

বন্ধ করুন