বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Kunal Ghosh-Dharmendra Pradhan Meet: ‘‌আমি বিজেপির নড়বড়ে প্রতিক্রিয়া উপভোগ করছি’‌, বিজেপিকে খোঁচা কুণালের
তৃণমূলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ (‌ছবি সৌজন্য এএনআই)‌

Kunal Ghosh-Dharmendra Pradhan Meet: ‘‌আমি বিজেপির নড়বড়ে প্রতিক্রিয়া উপভোগ করছি’‌, বিজেপিকে খোঁচা কুণালের

  • বিজেপি নেতার প্রেস বিবৃতিতে দাবি করা হয়, ধর্মেন্দ্র প্রধান ওই কর্মীর বাড়িতে নৈশভোজের জন্য গিয়েছিলেন। একই আবাসনে কুণাল ঘোষও বাসিন্দা। তবে তিনি আমন্ত্রিত ছিলেন না। কুণাল কাউকে না জানিয়েই ওই অনুষ্ঠানে আসেন। তাঁরা পূর্বপরিচিত।

কুণাল ঘোষ–ধর্মেন্দ্র প্রধানের দেখা হওয়াকে কেন্দ্র করে রাজ্য–রাজনীতিতে আলোড়ন পড়ে গিয়েছিল। তাই একপ্রকার বাধ্য হয়েই বিজেপি রাজ্য নেতৃত্ব প্রেস বিজ্ঞপ্তি জারি করেছিল। বিজেপির অফিস সেক্রেটারি প্রণয় রায় এক বিবৃতি প্রকাশ করে উল্লেখ করেন, কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধানের সঙ্গে তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক কুণাল ঘোষের বৈঠকের কথা সংবাদমাধ্যমে প্রকাশ পেয়েছে। এই বৈঠক পূর্বনির্ধারিত ছিল না।

ঠিক কী উল্লেখ করা হয়েছে?‌ বিজেপি নেতার প্রেস বিবৃতিতে দাবি করা হয়, ধর্মেন্দ্র প্রধান ওই কর্মীর বাড়িতে নৈশভোজের জন্য গিয়েছিলেন। একই আবাসনে কুণাল ঘোষও বাসিন্দা। তবে তিনি আমন্ত্রিত ছিলেন না। কুণাল কাউকে না জানিয়েই ওই অনুষ্ঠানে আসেন। তাঁরা পূর্বপরিচিত। রাজ্যসভায় তাঁদের কাটানো সময়ের কথা উল্লেখ করেন ধর্মেন্দ্র। দ্রুতই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ওই জায়গা থেকে চলে যান বলেই দাবি করা হয় বিবৃতিতে।

ঠিক কী টুইট করেছেন কুণাল?‌ বিজেপির এই প্রেস বিবৃতির পর টুইট করেন কুণাল ঘোষ। পরপর দু’টি টুইট করেন তিনি। টুইটে কুণাল ঘোষ লেখেন, ‘হ্যাঁ, ঘটনাক্রমে আমি ধর্মেন্দ্র প্রধানের সঙ্গে দেখা করেছিলাম, শনিবার আমি যখন বাড়ি ফিরছিলাম তখন। কিন্তু ভাবতে পারিনি যে এই ছোট বিষয়টি নিয়ে বিজেপি অযথা জলঘোলা করবে। এই ঘটনায় কোনও রাজনীতি ছিল না। আমি যেখানে থাকি সেই আবাসনেই অনুষ্ঠান হচ্ছিল। আমাকে দেখে স্থানীয় বিজেপি কর্মীরা সৌহার্দ্যপূর্ণভাবে আমাকে ভিতরে নিয়ে যান।’

দ্বিতীয় টুইটে কী লেখেন তিনি?‌ দ্বিতীয় টুইটে কুণাল ঘোষ লেখেন, ‘ধর্মেন্দ্র প্রধানকে ধন্যবাদ মিষ্টি ও সুন্দর প্রশংসার জন্য। আমি আমার প্রাক্তন সাংসদের পরিচয় ব্যবহার করিনি। তিনি বিজেপি নেতাদের সংসদে আমার বক্তৃতার কথা বলেছিলেন। এখন আমি বিজেপির নড়বড়ে প্রতিক্রিয়া উপভোগ করছি। যা প্রমাণ করে নিজেদের মধ্যে আত্মবিশ্বাসের অভাব রয়েছে। সত্যি এটা দারুণ মজার বিষয়।’

বন্ধ করুন