বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > কুন্তল ঘোষকে ১৪ দিনের ED হেফাজতে পাঠাল আদালত

কুন্তল ঘোষকে ১৪ দিনের ED হেফাজতে পাঠাল আদালত

গ্রেফতারির পর কুন্তল ঘোষ।

ইডির আইনজীবী আদালতকে জানান, কুন্তল ঘোষ তদন্তে সহযোগিতা করছেন না। বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দিচ্ছেন না তিনি। তাছাড়া তাঁর ফ্ল্যাট থেকে যে সম্পত্তির নথি উদ্ধার হয়েছে তা তাঁর আয়ের সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ নয়।

শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতিতে গ্রেফতার যুব তৃণমূল নেতা কুন্তল ঘোষকে ১৪ দিনের ইডি হেফাজতে পাঠাল আদালত। শনিবার ব্যাঙ্কশাল আদালতের বিশেষ ইডি আদালতে কুন্তলকে হেফাজতে চেয়ে জোরদার সওয়াল করে ইডি। যার সামনে টেকেনি কুন্তল ঘোষের আইনজীবীর কোনও সওয়ালই।

এদিন আদালতে ইডি দাবি করে, কুন্তল ঘোষের সঙ্গে অন্তত ৩০ কোটি টাকা লেনদেনের যোগ পাওয়া গিয়েছে। তাঁর কাছ থেকে উদ্ধার হওয়া ডায়েরিতে এই টাকার বিস্তারিত হিসাব রয়েছে। সেই টাকা তিনি কাদের থেকে নিয়েছেন। কেন টাকা নিয়েছেন। আর কার কাছেই বা টাকা পৌঁছে দিয়েছেন তা জানা দরকার।

এদিন ইডির আইনজীবী আদালতকে জানান, কুন্তল ঘোষ তদন্তে সহযোগিতা করছেন না। বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দিচ্ছেন না তিনি। তাছাড়া তাঁর ফ্ল্যাট থেকে যে সম্পত্তির নথি উদ্ধার হয়েছে তা তাঁর আয়ের সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ নয়। সঙ্গে ইডির আইনজীবীর মন্তব্য, আমরা এই দুর্নীতিকে ভারত মহাসাগর ভেবে তদন্ত শুরু করেছিলাম। কিন্তু এখন দেখছি প্রশান্ত মহাসাগর প্রমাণ দুর্নীতি হয়েছে।

পালটা কুন্তলের আইনজীবী দাবি করেন, যার কাছ থেকে কুন্তল টাকা নিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে সেই তাপস মণ্ডলকে গ্রেফতার করেনি ইডি। অথচ গ্রেফতার করা হয়েছে কুন্তল ঘোষকে। কুন্তলের সঙ্গে নিয়োগ দুর্নীতির কোনও যোগ নেই বলেও দাবি করেন তিনি। দুপক্ষের সওয়াল শুনে রায়দান স্থগিত রেখেছিলেন বিচারক। শনিবার সন্ধ্যায় তিনি জানান, ১৪ দিন ইডি হেফাজতে থাকতে হবে কুন্তলকে।

এদিন গ্রেফতারির পর কুন্তল দাবি করেন, আমাকে তাপস মণ্ডল ফাঁসিয়েছে। আমার কাছে উনি ৫০ লক্ষ টাকা দাবি করেছিলেন। সেই টাকা না দেওয়ায় আমার নামে অভিযোগ করেছেন উনি। যদিও তাপসবাবু জানান, যে টাকা কুন্তল চাকরি দেওয়ার নাম করে নিয়েছিলেন সেই টাকাই ফেরত চেয়েছেন তিনি।

 

 

বন্ধ করুন