বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > লক্ষ্য সোনার বাংলা- ‘ব্র্যান্ডেড বুদ্ধিজীবী’ নয়, সুশীল সমাজকে পাশে চায় বিজেপি
কর্মসূচী শুরু করছেন স্বপন দাসগুপ্ত
কর্মসূচী শুরু করছেন স্বপন দাসগুপ্ত

লক্ষ্য সোনার বাংলা- ‘ব্র্যান্ডেড বুদ্ধিজীবী’ নয়, সুশীল সমাজকে পাশে চায় বিজেপি

  • জানুয়ারি মাসের ২ তারিখ থেকে গোটা মাস রাজ্যজুড়ে সোনার বাংলা গড়ার লক্ষ্য বিশেষ কর্মসূচি রূপায়ণ করতে চলেছে বঙ্গ বিজেপি।

দুয়ারে সরকার, পাড়ায় সমাধান কর্মসূচি নিয়ে এসে তৃণমূল কংগ্রেস কার্যত মাস্টারস্ট্রোক দিয়েছিল। আর তার কমব্যাট করতে এবার মাঠে নামল গেরুয়া শিবির। জানুয়ারি মাসের ২ তারিখ থেকে গোটা মাস রাজ্যজুড়ে সোনার বাংলা গড়ার লক্ষ্য বিশেষ কর্মসূচি রূপায়ণ করতে চলেছে বঙ্গ বিজেপি। ৫০ জনের দল গঠন করে রাজ্যজুড়ে ১০টি বিষয়ের উপর প্রচার চালানো হবে। যার মূল লক্ষ্য হল, সোনার বাংলা তৈরির জন্য দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা তৈরি করা।

কীভাবে হবে সোনার বাংলা? তার হদিশ পেতেই এবার দুয়ারে দুয়ারে যাচ্ছে বিজেপি। ‘‌লক্ষ্য সোনার বাংলা’‌ কর্মসূচির ঘোষণা করল তারা। ২৯৪ কেন্দ্রে সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছবে গেরুয়া শিবিরের বিশেষ দল। কলকাতায় একটি সাংবাদিক বৈঠকে এই কথা জানালেন বিজেপি’‌র রাজ্যসভা সাংসদ স্বপন দাশগুপ্ত। বাংলার ঐতিহাসিক ও সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে তাঁরা মরিয়া বলেও উল্লেখ করেন। এই বৈঠকে তাঁর সঙ্গে ছিলেন রন্তিদেব সেনগুপ্ত, অনির্বাণ গঙ্গোপাধ্যায় ও সপ্তর্ষি চৌধুরীরা।

স্বপন দাশগুপ্ত জানান, ১০টি বিষয় নিয়ে এই ‘‌লক্ষ্য সোনার বাংলা’‌ কর্মসূচি। সেগুলি হল—সুশাসন, অর্থনীতি, দারিদ্র, কৃষকদের উন্নয়ন, পরিকাঠামো, যুব সমাজের কর্মসংস্থান, নারী নিরাপত্তা, সবকা সাথ সবকা বিকাশ, সাংস্কৃতিক উত্তরণ এবং শিক্ষার নতুন দিশা। ৪০টি দল পৌঁছে যাবে ২৯৪টি কেন্দ্রে। জানুয়ারি মাসের মধ্যে কাজ শেষ হবে। সমাজের বিভিন্ন অংশের মানুষের কাছ থেকে চাওয়া হবে মতামত।

তাঁর অভিযোগ, আগের সরকারগুলি বাংলার উন্নয়নে কিছু করেনি। তাদের উদাসীনতা ও দুর্নীতির কারণে আর্থিক থেকে সামাজিক সবক্ষেত্রেই পিছিয়ে পড়েছে পশ্চিমবঙ্গ। আমরা আবার বাংলার পুরনো গৌরব ফিরিয়ে আনতে চাইছি। কোনও কিছু একটা আদর্শকে কেন্দ্র করেই গড়ে ওঠে। বাংলার ঘরে ঘরে আগের মতো আদর্শ তৈরির সেই পরিবেশ ফিরিয়ে দিতে চাইছি আমরা। গত ৫০ বছর ধরে এই রাজ্যের উন্নয়নের জন্য দীর্ঘমেয়াদি কোনও পরিকল্পনা নেওয়া হয়নি। তাই ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে রাজ্যের সর্বাঙ্গীণ উন্নয়নের জন্য এই কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে।

বিজেপির রাজ্যসভার সাংসদ স্বপন দাশগুপ্ত বলেন, ‘‌ব্র্যান্ডেড বুদ্ধিজীবীদের সমর্থন আশা করি না। তাঁদের বাইরেও সুশীল সমাজ আছে। তাঁরা নীরব ভোটার। আমাদের সঙ্গে রয়েছেন। তাঁদের কাছে পৌঁছনোই লক্ষ্য। বললেই কি নম্বর ওয়ান হওয়া যায়? তার জন্য অনেক পরিকল্পনা আর পরিশ্রম করতে হয়। নিজে বললে হয় না, অন্যরা যখন নম্বর ওয়ানের স্বীকৃতি দেয় সেটাই আসল। আমরা এই রাজ্যকে সেই সোনার বাংলাই বানাতে চাই।’‌

 

বন্ধ করুন