বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > ভবানীপুরে শেষ লগ্নে ঝাঁঝালো 'চিঠি' তুরুপের তাস হিসেবে ফেলল পদ্ম শিবির
শেষ লগ্নে ঝাঁঝালো 'চিঠিকেই' তুরুপের তাস হিসেবে ফেলল পদ্ম শিবির: ছবি (সৌজন্যে ফেসবুক )
শেষ লগ্নে ঝাঁঝালো 'চিঠিকেই' তুরুপের তাস হিসেবে ফেলল পদ্ম শিবির: ছবি (সৌজন্যে ফেসবুক )

ভবানীপুরে শেষ লগ্নে ঝাঁঝালো 'চিঠি' তুরুপের তাস হিসেবে ফেলল পদ্ম শিবির

  • বিজেপি সূত্রে জানা গিয়েছে, যদি কোনও তৃণমূল নেতা কর্মীদের বাড়িও হয়, সেক্ষেত্রেও চিঠিটি তাঁদের বাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়া হবে

নির্বাচনী প্রচার শেষ হয়েছে ভবানীপুরে। শেষ মুহূর্তে নিঃশব্দে অমোঘ অস্ত্র দেগে দিল বিজেপি। বামেদের মতো ঝাঁঝালো চিঠিকেই তুরুপের তাস হিসেবে বেছে নিয়েছে গেরুয়া শিবির। ভবানীপুরের প্রত্যেকটি বাড়িতে চিঠি ফেলার সিদ্ধান্ত নিল তাঁরা। 

ভবানীপুরের বিজেপি প্রার্থী প্রিয়াঙ্কা টিব্রেওয়ালের স্বপক্ষে এই চিঠি বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা স্থির করেছে পদ্ম শিবির। বিজেপি সূত্রে জানা গিয়েছে, যদি কোনও তৃণমূল নেতা কর্মীদের বাড়িও হয়, সেক্ষেত্রেও চিঠিটি তাঁদের বাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়া হবে।

ইভিএমের চিহ্ন দেওয়া এই চিঠিতে মূলত তিনটি বিষয়কে হাতিয়ার করেছেন ভবানীপুরের বিজেপি প্রার্থী প্রিয়াঙ্কা। প্রথমত দাবি করা হয়েছে যে, ভবানীপুরে ভোটের ফলে সরকার বদল হবে না ঠিকই, তবে মুখ্যমন্ত্রী বদল হবে। তাঁর দাবি, সেক্ষেত্রে সরকারের মেকানিজমে কিছুটা হলেও দুর্নীতিমুক্ত হবে। চিঠিতে আরও উল্লেখ করা হয়েছে যে, আপনাদের একটি ভোটে সরকার বদল হবে না, কিন্তু রাজ্যের মানুষ দুর্নীতির ভোগান্তি থেকে কিছুটা হলেও বাঁচবে।

এই চিঠিতে আরও দাবি করা হয়েছে, মুখ্যমন্ত্রী পরাজিত হলে, তৃণমূল ও প্রশাসনের মধ্যে থেকে দুর্নীতি অনেকটাই লাঘব হবে। বিজেপির প্রার্থীর আরও দাবি, একবার যদি মুখ্যমন্ত্রী জিতে যান, সে ক্ষেত্রে মানুষের ধরাছোঁয়ার বাইরে চলে যাবেন। কিন্তু তিনি সর্বদাই মানুষের পাশে থাকবেন বলেও প্রতিশ্রুতি দেন টিব্রেওয়াল।

বিজেপি সূত্রে জানা গিয়েছে, দল-মত-নির্বিশেষে প্রায় 8০ হাজার মানুষের বাড়ি চিঠি পৌঁছে দেওয়া হবে। তবে এখনও পর্যন্ত যা অল্প সময় হাতে রয়েছে, তারমধ্যে এই কৌশল কতটা কার্যকর হবে, তা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছে রাজনৈতিক মহল।

 

বন্ধ করুন