বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > মদের দোকান খুলতেই ভিড় উপচে পড়ল মুখ্যমন্ত্রীর পাড়ায়, ময়দানে নামতে হল পুলিশকে
কলকাতায় মদের দোকানের সামনে দীর্ঘ লাইন।
কলকাতায় মদের দোকানের সামনে দীর্ঘ লাইন।

মদের দোকান খুলতেই ভিড় উপচে পড়ল মুখ্যমন্ত্রীর পাড়ায়, ময়দানে নামতে হল পুলিশকে

  • মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ি হওয়ায় ওই এলাকায় বছরভর জারি থাকে ১৪৪ ধারা। ভিড় জমায় ১৪৪ ধারা ভঙ্গ হওয়ায় হালকা লাঠি চালিয়ে জমায়েত সরিয়ে দেয় পুলিশ।

লকডাউনের মধ্যে মদের দোকান খুলতেই ভিড় উপচে পড়ল খোদ মুখ্যমন্ত্রীর পাড়ায়। দফারফা হল সোশ্যাল ডিসট্যান্সিংয়ের বিধি। ভিড় নিয়ন্ত্রণে আনতে সোমবার হালকা লাঠিও চালাতে হয়েছে পুলিশকে। শুধু মুখ্যমন্ত্রীর পাড়া নয়, এদিন কলকাতা শহরজুড়ে মদের দোকানের সামনে বিশৃঙ্খলা দেখা যায়। যার জেরে ক্রমশ বাড়ছে করোনা সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কা। 

সোমবার সকালে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাড়ায় কালীঘাট ফায়ার ব্রিগেডের পাশে মদের দোকানটি খুলতেই ভিড় উপচে পড়ে। দোকান খোলার আগে থেকেই লাইনে দাঁড়িয়ে ছিলেন অনেকে। দোকান খোলার পর সেই লাইন মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ির গলি হরিশ মুখার্জি স্ট্রিটের মুখ পর্যন্ত চলে যায়। ক্রমশ আরও বাড়তে থাকে ভিড়। 

মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ি হওয়ায় ওই এলাকায় বছরভর জারি থাকে ১৪৪ ধারা। ভিড় জমায় ১৪৪ ধারা ভঙ্গ হওয়ায় হালকা লাঠি চালিয়ে জমায়েত সরিয়ে দেয় পুলিশ। 

লকডাউনের তৃতীয় ভাগে কনটেনমেন্ট জোন নয় এমন এলাকায় মদের দোকান খোলার অনুমতি দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। সেজন্য অবশ্য মানতে হবে একগুচ্ছ শর্ত। এর মধ্যে মদ কিনতে গেলে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক বলে ঘোষণা করেছে কেন্দ্র। তাছাড়া দোকানের সামনে ক্রেতাদের ৬ ফুট দূরত্বে দাঁড়াতে হবে। ৫ জনের বেশি লাইনে দাঁড়াতে পারবেন না। প্রয়োজনে টোকেনের ব্যবস্থা করতে হবে। দোকানের সামনে নতুন মূল্যতালিকা ঝোলাতে হবে ইত্যাদি। কিন্তু সোমবার সকালে মাস্ক ছাড়া অন্য কোনও বিধির বালাই দেখা যায়নি কলকাতা শহরে। 

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, পশ্চিমবঙ্গ তথা দেখে এখনো করোনা সংক্রমণের হার উর্ধ্বমুখী। এই পরিস্থিতিতে এই ধরণের কাণ্ডজ্ঞানহীন আচরণে সংক্রমণ বেলাগাম হতে পারে।

 

বন্ধ করুন