বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > ‘‌এটা ১৫ মিনিটের প্রহসনের বৈঠক’‌, লোকায়ুক্ত নিয়োগ বৈঠক বয়কট করলেন শুভেন্দু
শুভেন্দু অধিকারী। ফাইল ছবি

‘‌এটা ১৫ মিনিটের প্রহসনের বৈঠক’‌, লোকায়ুক্ত নিয়োগ বৈঠক বয়কট করলেন শুভেন্দু

  • এখানের বৈঠক নিয়ে রাজ্যের বিরোধী দলনেতা স্পষ্ট জানিয়েছেন, ১৫ মিনিটের ওই ‘প্রহসনের’ বৈঠকে থাকবেন না তিনি।

আজ, সোমবার রাজ্যে লোকায়ুক্ত নিযুক্ত হতে চলেছে। বিধানসভা ভবনে অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়ের দফতরে এই বৈঠক হবে। কিন্তু এই বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মুখোমুখি হবেন না বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। এখানে পদাধিকারবলে রয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, বিধানসভার অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়, পরিষদীয়মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় এবং বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। এখানের বৈঠক নিয়ে রাজ্যের বিরোধী দলনেতা স্পষ্ট জানিয়েছেন, ১৫ মিনিটের ওই ‘প্রহসনের’ বৈঠকে থাকবেন না তিনি।

বিধানসভা সূত্রে খবর, এখানে লোকায়ুক্ত নিয়োগ সংক্রান্ত বৈঠক হবে। তার ১৫ মিনিট পরেই মানবাধিকার কমিশনের নতুন চেয়ারম্যান নিয়োগ নিয়ে বৈঠক হবে। দুটি বৈঠকেই থাকবেন না রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। তাঁর অভিযোগ, রাজ্যের প্রস্তাব করা নাম দেখে তিনি বিকল্প প্রস্তাব দিতে পারেন। এটা নিয়ে নবান্নে চিঠি দিলেও কোনও পদক্ষেপ করেনি রাজ্য সরকার।

তবে এই বৈঠকে উপস্থিত থাকবেন কি থাকবেন না তা নিয়েই আগেই গড়িমসি করেছিলেন শুভেন্দু। বেঁধে দিয়েছিলেন শর্ত। এবার অভিযোগ তুলে আসবেন না বলে জানিয়েছেন সংবাদমাধ্যমে। তাঁর অভিযোগ, রাজ্য সরকার নিজের মতো নাম ঠিক করেছে। ১৫ মিনিটের ওই বৈঠকে কেবল সম্মতি জানানোর জন্য ডাকা হচ্ছে। তাঁর মতামত জানতে চাওয়া হয়নি। তাই এই বৈঠক বয়কট করছেন তিনি।

ঠিক কী বলেছেন তিনি?‌ শুভেন্দু অধিকারী বলেন, ‘‌এটা প্রহসনের বৈঠক। ১৫ মিনিটের ওই বৈঠকে সবকিছু আগে থেকে ঠিক করা আছে। আমাকে কেবল হ্যাঁ–তে হ্যাঁ বলতে হবে। আমি নবান্নে জানিয়েছিলাম, আমাকে প্যানেলের লিস্ট দেওয়া হোক। আমি আগে নাম দেখব। কিন্তু তা দেওয়া হয়নি। তাই আমি বৈঠকে থাকব না। বিষয়টি রাজ্যপালকেও জানিয়েছি। এই ধরনের গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক ১৫ মিনিটের মধ্যে শেষ হয়ে যাবে এটা ধরে নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। নিয়োগে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার এক্তিয়ার রাজ্যপালের রয়েছে। এখনও পর্যন্ত সরকারের প্রস্তাব দেখিনি। তাই প্রয়োজন হলে বিকল্প প্রস্তাব পাঠাব। সংবিধান অনুযায়ী ব্যবস্থা নেবেন রাজ্যপাল।’‌

বন্ধ করুন