বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > ‘‌তোমায় হৃদমাঝারে রাখব, ছেড়ে দেব না’‌, একতারা বাজিয়ে ভবানীপুরে প্রচার মদনের
‘‌তোমায় হৃদমাঝারে রাখব, ছেড়ে দেব না’‌, মমতার হয়ে একতারা বাজিয়ে প্রচার মদনের
‘‌তোমায় হৃদমাঝারে রাখব, ছেড়ে দেব না’‌, মমতার হয়ে একতারা বাজিয়ে প্রচার মদনের

‘‌তোমায় হৃদমাঝারে রাখব, ছেড়ে দেব না’‌, একতারা বাজিয়ে ভবানীপুরে প্রচার মদনের

তৃণমূল নেত্রীর প্রচারকে সামনে রেখে শিক্ষক দিবসে কয়েকজন শিক্ষকের পা ধুইয়ে দিলেন তিনি।

‌একতারা বাজিয়ে গান গেয়ে ‘‌ঘরের মেয়ে’‌ তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হয়ে প্রচার করলেন তৃণমূল বিধায়ক তথা নেত্রীর দীর্ঘদিনের সঙ্গী মদন মিত্র। মদনের মুখে তখন বাউলের সুর, ‘‌তোমায় হৃদমাঝারে রাখব। ছেড়ে দেব না।’‌ মদনকে গান ধরতে দেখে গাড়ি থামিয়ে দাঁড়িয়ে গেলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। কর্মী সমর্থকদের উৎসাহিত করে কোভিড বিধি মেনে চলার পরামর্শ দেন তিনি।

আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর ভোটের দিন ঘোষণা হতেই ভবানীপুরে তৃণমূল নেত্রীর হয়ে জোর কদমে প্রচার শুরু করে দেন দলের কর্মী-সমর্থকরা। তবে এদিন ছিল ভোট ঘোষণা হয়ে যাওয়ার পর প্রথম রবিবাসরীয় প্রচার। আর সেই রবিবাসরীয় প্রচার একেবারে জমিয়ে দিলেন কামারহাটির বিধায়ক মদন মিত্র। মদনের নিজের বিধানসভা কেন্দ্র কামারহাটি হলেও ভবানীপুরের ডি এল খান রোড তাঁর নিজের বাড়ির এলাকা। সেখানেই তৃণমূল নেত্রীর হয়ে প্রচার জমিয়ে দিলেন ব্যতিক্রমী ঢঙে।

এদিন সকালেই সাদা, নীল পঞ্জাবী পরা মদন মিত্র নিজেই একতারা বাজিয়ে গান ধরলেন। তাঁর সেই গানের সঙ্গে গলা মেলালেন অনুগামীরাও। এরপরই নিজে হাতেই তুলি দিয়ে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নামে দেওয়াল লিখন করেন তিনি। এখানেই শেষ নয়, তৃণমূল নেত্রীর প্রচারকে সামনে রেখে শিক্ষক দিবসে কয়েকজন শিক্ষকের পা ধুইয়ে দিলেন তিনি।

এদিন মদন মিত্র যখন প্রচার করছিলেন, তখন সেখানে হাজির হন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অভিভাবকের মতোই তাঁকে রোদে বেশি ঘুরতে নিষেধ করেন তৃণমূল নেত্রী। পাশাপাশি কর্মী ও সমর্থকদের উৎসাহ দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেইসঙ্গে তিনি জানালেন, ‘‌ভালো করে কাজ কর। আমি তোমাদের সঙ্গে আছি।’‌

বন্ধ করুন