বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > বাকি শুধু তার বাঁধার কাজ, পুজোর আগেই মাঝেরহাট সেতু চালু করতে মরিয়া পূর্ত দফতর
প্রতীকি ছবি
প্রতীকি ছবি

বাকি শুধু তার বাঁধার কাজ, পুজোর আগেই মাঝেরহাট সেতু চালু করতে মরিয়া পূর্ত দফতর

  • চলতি বছর পুজোর আগে মাঝেরহাট সেতু চালু করতে নির্দেশ দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেজন্য পূর্ত দফতরকে যাবতীয় পদক্ষেপ করতে নির্দেশ দিয়েছিলেন তিনি।

পুজোর আগেই ভেঙে পড়া মাঝেরহাট উড়ালপুল ফের চালু করতে শুরু হল চূড়ান্ত পর্বের তৎপরতা। পূর্ত দফতরের সূত্রে জানা গিয়েছে, সেতুর মাঝে ঝুলন্ত অংশ তার দিয়ে বেঁধে ফেললেই চালু করা যাবে যানচলাচল। আর পুজোর আগেই সেই কাজ শেষ করতে মরিয়া পুর্ত দফতরের আধিকারিকরা। 

জানা গিয়েছে, মাঝেরহাট সেতুর প্রায় ৯০ শতাংশ কাজ শেষ। সেতু রং করার কাজও শুরু হয়ে গিয়েছে। বাকি শুধু রেল লাইনের ওপরের ঝুলন্ত অংশ তার দিয়ে বাঁধার কাজ। বিদ্যাসাগর সেতুর মতো উঁচু স্তম্ভের সঙ্গে তার দিয়ে বাঁধা হবে সেতুর র্যাম্পকে। সেজন্য দিন – রাত কাজ করছেন পূর্ত দফতরের আধিকারিকরা। 

চলতি বছর পুজোর আগে মাঝেরহাট সেতু চালু করতে নির্দেশ দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেজন্য পূর্ত দফতরকে যাবতীয় পদক্ষেপ করতে নির্দেশ দিয়েছিলেন তিনি। পুরনো সেতু ভেঙে নতুন সেতু তৈরি করতে গিয়ে প্রথমে রেলের সঙ্গে বেশ কিছু জিনিস নিয়ে মতবিরোধ তৈরি হয়েছিল রাজ্য সরকারের। শেষ পর্যন্ত সেই সব বিরোধ মিটিয়ে মাথা তুলে দাঁড়িয়েছে সেতু। 

পূর্ত দফতর সূত্রের খবর, পুজোর আগে সেতু চালু করার পরিকল্পনা থাকলেও সুরক্ষা নিয়ে কোনও আপোস করবেন না আধিকারিকরা। কারণ, পোস্তা উড়ালপুল দুর্ঘটনার কথা এখনো তাজা দফতরের আধিকারিকদের মনে। সেক্ষেত্রেও জগদ্ধাত্রী পুজোর উদ্বোধনে গিয়ে দ্রুত সেতু চালু করার নির্দেশ দিয়ে এসেছিলেন মমতা।

মাঝেরহাট সেতু ভেঙে পড়ায় অনেকটা ঘুরে কলকাতায় যাতায়াত করতে হচ্ছে বেহালা-সহ দক্ষিণ ২৪ পরগনার বিস্তীর্ণ এলাকার বাসিন্দাদের।

 

বন্ধ করুন