বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > অত্যাচারের উপর অত্যাচার হচ্ছে, ত্রিপুরায় গণতন্ত্রের কঙ্কাল বেরিয়ে পড়েছে: মমতা
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)

অত্যাচারের উপর অত্যাচার হচ্ছে, ত্রিপুরায় গণতন্ত্রের কঙ্কাল বেরিয়ে পড়েছে: মমতা

  • তিনি জানান, সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ মানছে না ত্রিপুরা সরকার। এটা শীর্ষ আদালতের অবমাননা।

ত্রিপুরায় তৃণমূল নেতা–কর্মীদের উপর আক্রমণের ঘটনায় সরব হলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ত্রিপুরার ঘটনাকে তুলে ধরে তৃণমূল নেত্রী বিজেপিকে নিশানা করে বললেন, ‘‌ওরা ভোটের নামে ঘোট করে। মানুষকে বিশ্বাস করতে পারছে না। ওরা ভয় পাচ্ছে।’‌ একইসঙ্গে তৃণমূল নেতা–কর্মীর আক্রান্ত হওয়ার ঘটনায় জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন তুললেন তিনি।

এদিন দিল্লি সফরে গেলেন তৃণমূল নেত্রী। দিল্লি সফরে যাওয়ার আগে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তৃণমূল নেত্রী ত্রিপুরায় সাম্প্রতিককালে ঘটে যাওয়া ঘটনা নিয়েও সরব হন। এই প্রসঙ্গে তৃণমূল নেত্রী জানান, ‘‌বিজেপি শাসিত রাজ্যে গণতন্ত্র নেই। কথায় কথায় মানুষকে খুন করা হচ্ছে। গুণ্ডারা অস্ত্র নিয়ে পুলিশের সামনে রাস্তায় ঘুরছে। নির্বাচনের নামে ত্রিপুরায় প্রহসন চলছে। তারপরেও আমাদের কর্মীরা ত্রিপুরায় কাজ করছেন। মানুষ এর জবাব দেবেন।’‌

তাঁর অভিযোগ, 'গতকাল থেকে তৃণমূল নেতারা ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করার জন্য অ্যাপয়েন্টমেন্ট চাইছেন। কিন্তু তিনি অ্যাপয়েন্টমেন্ট দিচ্ছেন না। সকলের কথা বলার অধিকার আছে।' একইসঙ্গে তৃণমূল যুব নেত্রী সায়নী ঘোষকে গ্রেফতারের প্রসঙ্গেও সরব হয়েছেন তৃণমূল নেত্রী। তিনি জানান, 'সায়নীর মতো শিল্পীর বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ দিয়েছে। অত্যাচারের উপর অত্যাচার করা হচ্ছে। এখন কোথায় গেল জাতীয় মানবাধিকার কমিশন? বিজেপি শাসিত রাজ্যে এখন গণতন্ত্রের কঙ্কাল বেরিয়ে পড়েছে।'

ত্রিপুরায় যাতে সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন প্রক্রিয়া পরিচালিত হয়, সম্প্রতি সেই নির্দেশ দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ থাকা সত্ত্বেও ত্রিপুরার বুকে একের পর এক অশান্তির ঘটনা ঘটায় ক্ষুব্ধ তৃণমূল নেত্রী। তিনি জানান, 'সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ মানছে না ত্রিপুরা সরকার। এটা শীর্ষ আদালতের অবমাননা। তৃণমূল নেত্রী জানিয়েছেন, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করে ত্রিপুরার পরিস্থিতি নিয়ে জানাবেন। শুধু ত্রিপুরা নয়, উত্তরপ্রদেশ, অসম সহ একাধিক রাজ্যে এই একই পরিস্থিতি।'

বন্ধ করুন