বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Assembly: মুখ্যমন্ত্রীর পাশের আসন ফাঁকা রাখা হচ্ছে, বিধানসভায় নয়া সিদ্ধান্তে চর্চা তুঙ্গে
বিধানসভায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

Assembly: মুখ্যমন্ত্রীর পাশের আসন ফাঁকা রাখা হচ্ছে, বিধানসভায় নয়া সিদ্ধান্তে চর্চা তুঙ্গে

  • এখন বিধানসভায় পরিষদীয় মন্ত্রী হয়েছেন শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়। তাই অনেকে ধরে নিয়েছিলেন এই বর্ষীয়ান নেতাই বসবেন মুখ্যমন্ত্রীর পাশের চেয়ারে। কিন্তু সেটা কোন অজানা কারণে হল না, জানা যায়নি। পার্থের পরিষদীয় দফতরের দায়িত্ব পেয়েছেন শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়। ফিরহাদ বা শোভনদেব কাউকেই এই আসনটি দেওয়া হচ্ছে না।

পার্থ চট্টোপাধ্যায় জেলে যাওয়ার আগে পর্যন্ত বিধানসভায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশের আসনে বসতেন। কিন্তু এখন সেই সোনালি দিন অতীত। সেপ্টেম্বর মাসের অল্প সময়ের অধিবেশনে ওই আসনে কাউকে বসতে দেওয়া হবে না বলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। মন্ত্রিসভার রদবদলে তাঁকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। দল থেকেও সরানো হয়েছে। পরিষদীয় মন্ত্রীও তিনি এখন নন। তাই বিধানসভায় বিধায়কদের বসার ব্যবস্থা নতুন করে সাজানো হয়েছে। সেখানে মুখ্যমন্ত্রীর পাশের আসনটি কারও জন্য বরাদ্দ করা হয়নি।

ঠিক কী হয়েছে বিধানসভায়?‌ বিধানসভা সূত্রে খবর, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশের আসনটিতে কে বসবে সেটা এখনও ঠিক হয়নি। আগে শোনা গিয়েছিল, ওই আসনটিতে বসবেন ফিরহাদ হাকিম। কিন্তু সম্প্রতি তাঁকে নিয়েও বিতর্ক তৈরি হওয়ায় সেটি হচ্ছে না। তাই এখনও পর্যন্ত আসনটি কাউকে দেওয়া হয়নি। ভবিষ্যতে কাকে দেওয়া হবে সেটা এখনও স্পষ্ট নয়।

আর কী জানা যাচ্ছে?‌ সূত্রের খবর, এখন বিধানসভায় পরিষদীয় মন্ত্রী হয়েছেন শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়। তাই অনেকে ধরে নিয়েছিলেন এই বর্ষীয়ান নেতাই বসবেন মুখ্যমন্ত্রীর পাশের চেয়ারে। কিন্তু সেটা কোন অজানা কারণে হল না, জানা যায়নি। পার্থের পরিষদীয় দফতরের দায়িত্ব পেয়েছেন শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়। ফিরহাদ বা শোভনদেব কাউকেই এই আসনটি দেওয়া হচ্ছে না। মনে করা যাচ্ছে, এই ঘটনার নেপথ্যে কোনও বড় ভাবনা রয়েছে।

বিধানসভায় আসনের বিন্যাস কেমন?‌ এবার অল্প সময়ের অধিবেশনে ওই আসনে কাউকে বসতে দেওয়া হবে না। এটাই আপাতত সিদ্ধান্ত হয়েছে। পরে কাউকে ভাবা যেতে পারে। বিধানসভায় তিনজনের পাশের আসন কাউকে দেওয়া হয় না। তাঁরা হলেন মুখ্যমন্ত্রী, ডেপুটি স্পিকার এবং মুখ্য সচেতক। তাই মুখ্যমন্ত্রীর পাশের আসন খালিই থাকত। ঠিক তার পরের আসনে বসতেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

বন্ধ করুন