বাড়ি > বাংলার মুখ > কলকাতা > বৈঠকে আমন্ত্রণ জানিয়ে দিলীপ ঘোষকে ফোন মমতার
ফাইল ছবি
ফাইল ছবি

বৈঠকে আমন্ত্রণ জানিয়ে দিলীপ ঘোষকে ফোন মমতার

  • দিলীপবাবু যদিও এই নিয়ে বেশি শব্দ খরচ করেননি। শুধু জানিয়েছেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁকে ফোন করেছিলেন। সর্বদল বৈঠকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন।

বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে ফোন করলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সোমবার দুজনের মধ্যে ফোনালাপ হয়েছে হয়েছে বলে জানিয়েছেন দিলীপবাবু নিজেই। বুধবারের সর্বদল বৈঠকে আমন্ত্রণ জানানোর জন্য এদিন দিলীপ ঘোষকে ফোন করেন মুখ্যমন্ত্রী। 

পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভায় এখনও বহরে অনেক ছোট বিজেপি। তবে লোকসভা নির্বাচনের ফলে স্পষ্ট সেই আকার বৃদ্ধি শুধু সময়ের অপেক্ষা। বাম-কংগ্রেসকে পিছনে ফেলে ইতিমধ্যে রাজ্যের প্রধান বিরোধী শক্তি হিসাবে উঠে এসেছে বিজেপি। লক্ষ্য ২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গের ক্ষমতাদখল। এই পরিস্থিতিতে শাসক তৃণমূল তথা তৃণমূল নেত্রীর সঙ্গে বাকযুদ্ধ লেগেই রয়েছে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের। কার্যত যুযুধান ২ পক্ষের এই ফোনালাপ নিয়ে উৎসাহ তো থাকবেই। 

দিলীপবাবু যদিও এই নিয়ে বেশি শব্দ খরচ করেননি। শুধু জানিয়েছেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁকে ফোন করেছিলেন। সর্বদল বৈঠকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন। মুখ্যমন্ত্রীর আমন্ত্রণ গ্রহণ করে সর্বদল বৈঠকে যোগ দেবেন বলে জানিয়েছেন তিনি। 

সূত্রের খবর, এদিন বিকেলে মুখ্যমন্ত্রী ফোন করেন দিলীপ ঘোষকে। দিলীপবাবুকে বুধবারের বৈঠকে হাজির থাকার অনুরোধ করেন তিনি। দিলীপ ঘোষ মুখ্যমন্ত্রীকে জানান, বুধবার মেদিনীপুরে তাঁর কর্মসূচি রয়েছে। শুনে মুখ্যমন্ত্রী নিজস্ব ভঙ্গিমায় বলেন, ‘ওসব পরে হবে, বুধবারের মিটিংয়ে আসবেন।’

করোনা পরিস্থিতি পর্যালোচনায় বুধবার নবান্ন সভাঘরে সর্বদল বৈঠক ডেকেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাতে বিধানসভায় প্রতিনিধিত্ব নেই এমন দলের নেতৃত্বকেও আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। করোনা পরিস্থিতি নিয়ে প্রায় ৩ মাস পর বৈঠক ডাকলেন মমতা। 

বন্ধ করুন