বাড়ি > বাংলার মুখ > কলকাতা > ত্রাণ নিয়ে দুর্নীতি বরদাস্ত নয়, দলীয় বৈঠকে ঘোষণা মমতার
নেত্রীর নির্দেশ, রাজ্য সরকারের সাফল্যের খতিয়ান জনসাধারণের কাছে পৌঁছে দিতে হবে।
নেত্রীর নির্দেশ, রাজ্য সরকারের সাফল্যের খতিয়ান জনসাধারণের কাছে পৌঁছে দিতে হবে।

ত্রাণ নিয়ে দুর্নীতি বরদাস্ত নয়, দলীয় বৈঠকে ঘোষণা মমতার

  • ত্রাণ দেওয়া নিয়ে রাজনীতি থেকে বিরত থাকতে দলীয় কর্মীদের সতর্ক করলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

করোনা সংকট ও ঘূর্ণিঝড় আমফানে ক্ষতিগ্রস্তদের ত্রাণ দেওয়া নিয়ে রাজনীতি থেকে বিরত থাকতে দলীয় কর্মীদের সতর্ক করলেন মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

শুক্রবার সন্ধ্যায় প্রায় তিন ঘণ্টা ব্যাপী দলের অভ্যন্তরীণ বৈঠকে মমতা নির্দেশ দেন, ত্রাণ বণ্টন নিয়ে কোনও রকম দুর্নীতি তিনি সহ্য করবেন না। ত্রাণ সরবরাহ নিয়ে বাস্তব পরিস্থিতি জানতে তিনি রাজ্য ও জেলা স্তরের নেতাদের থেকে খুঁটিয়ে তথ্য জানতে চান। এ দিন ভিডিয়ো কনফারেন্সিং-এর মাধ্যমে এই বৈঠকে দলীয় প্রশাসনিক স্তরে কিছু প্রয়োজনীয় পরিবর্তনও করেছেন নেত্রী।

বৈঠকে মমতা কড়া নির্দেশ দিয়েছেন, গত ৯ বছরে রাজ্য সরকারের সাফল্যের খতিয়ান জনসাধারণের কাছে পৌঁছে দিতে হবে। এর জন্য বাড়ি বাড়ি ঘুরে প্রচারের উপরে তিনি জোর দেন। 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দলের এক লোকসভা সাংসদ জানিয়েছেন, ত্রাণ বণ্টনে জড়িয়ে না পড়ার জন্য দলীয় কর্মীদের সতর্ক করেন মমতা। বিষয়টি প্রশাসনের উপরেই ছেড়ে দিতে বলেন নেত্রী। দুর্গতরা সকলে যাতে ত্রাণ পান, সে বিষয়ে জোর দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। ত্রাণ সরবরাহের ব্যাপারোে দুর্নীতির অভিযোগ পেলে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও তিনি জানিয়েছেন। 

প্রসঙ্গত, আগামী ৯ জুন বাংলায় বিজেপির লোকসভা নির্বাচনের প্রচার অভিযান উদ্বোধন করতে রাজ্যে আসছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। ‘আর নয় মমতা’ শীর্ষক প্রচারে এবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকারের বিরুদ্ধে দুর্নীতির তাস খেলতে তৈরি হয়েছে বিরোধী শিবির। একই ভাবে তৃণমূলকে কাঠগড়ায় তুলেছে কংগ্রেস ও বামেরাও। এই পরিস্থিতিতে দলের ভাবমূর্তি পরিচ্ছন্ন রাখতে মরিয়া মমতা। 

বৈঠকে বিজেপির তৎপরতার উল্লেখ করে সরকারি কাজেয়ার খতিয়ান পেশ করে জোরদার প্রচার শুরু করতে দলীয় নেতা-কর্মীদের নির্দেশ দিয়েছেন তৃণমূল নেত্রী। গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের বিরুদ্ধেও কড়া অবস্থান জারি করেছেন মমতা। অন্যান্য অভ্যন্তরীণ বৈঠকের প্রথা মেনেই এবারও নেত্রী ছাড়া কেউ কোনও কথা বলেননি। 

 

বন্ধ করুন