বৃহস্পতিবার নবান্নে মমতা।  (PTI)
বৃহস্পতিবার নবান্নে মমতা। (PTI)

রাজাবাজার, মেটিয়াবুরুজে লকডাউন মানা হচ্ছে না, কেন্দ্রের দাবি মানতে নারাজ মমতা

মমতা বলেন, ‘কেন্দ্র কিছু এলাকায় বেশি করে নজর রাখতে বলেছে। পুলিশ ইতিমধ্যেই সেই কাজ করছে।’

কলকাতার কিছু অংশে লকডাউনের নিয়ম মানা হচ্ছে না, কেন্দ্রের এই দাবি মানলেন না মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। উলটে দিল্লির বিরুদ্ধে ‘কমিউনাল ভাইরাস’ ছড়ানোর চেষ্টার অভিযোগ তুললেন তিনি।

শুক্রবার পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যসচিব ও রাজ্য পুলিশের ডিজিকে একটি চিঠি দেয় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক। তাতে জানানো হয়, কলকাতা শহরের রাজাবাজার, তপসিয়া, নারকেলডাঙা, মেটিয়াবুরুজ, গার্ডেনরিচ-সহ একাধিক জায়গায় লকডাউন মানা হচ্ছে না। বাজার ঘাটে মানা হচ্ছে না সোশ্যাল ডিসট্যান্সিংয়ের নিয়ম। এই সব এলাকায় বিপর্যয় মোকাবিলা আইন ২০০৫ কড়া ভাবে প্রয়োগ করার পরামর্শ দেওয়া হয় কেন্দ্রের তরফে।

শনিবার নবান্নে এই নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘এরম ভাবে চিঠি তারা দেয়নি। তারা একটু নজর রাখতে বলেছে ওভার অল সিচুয়েশনের ওপর। নাথিং এলস। এটা রটাচ্ছে কিছু লোক ফেক নিউজ করে। কতগুলো এলাকায় বলেছে বিশেষ নজর দেও। আর সেটা আপনারা ভাল বুঝতেই পারে দিল্লি কাদের ওপর বেশি নজর দিতে বলে। সেটা আমি আর বললাম না।‘

মমতা বলেন, ‘কেন্দ্র কিছু এলাকায় বেশি করে নজর রাখতে বলেছে। পুলিশ ইতিমধ্যেই সেই কাজ করছে।’

একই সঙ্গে মমতার প্রশ্ন, ‘কমিউনাল ভাইরাস সামলাবো না মানুষের ভাইরাস?’

বলে রাখি, কলকাতা-সহ রাজ্যের একাধিক মুসলিম অধ্যুষিত এলাকায় লকডাউন মানা হচ্ছে না বলে প্রথম থেকেই অভিযোগ করছে বিজেপি। শুক্রবার মুর্শিদাবাদের বড়ঞাঁয় একটি মসজিদে নমাজ পড়তে জড়ো হন প্রায় ১০০০ মানুষ। খবর পেয়ে পুলিশ পৌঁছে মসজিদ থেকে দ্রুত ভিড় সরায়। ততক্ষণে নমাজ সারা। এর পর মসজিদের ইমামকে মৌখিকভাবে সতর্ক করেই ছেড়ে দেন কান্দির SDPO.


বন্ধ করুন