বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > ঘনিষ্ঠভাবে চিনতাম, বিধায়ক মুকুল রায়ের স্ত্রীয়ের প্রয়াণে শোক বার্তা মুখ্যমন্ত্রীর
মুকুল রায়ের সঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (ফাইল ছবি)
মুকুল রায়ের সঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (ফাইল ছবি)

ঘনিষ্ঠভাবে চিনতাম, বিধায়ক মুকুল রায়ের স্ত্রীয়ের প্রয়াণে শোক বার্তা মুখ্যমন্ত্রীর

  • আজ সকালে চেন্নাইয়ের এক হাসপাতালে প্রয়াত হন মুকুল রায়ের স্ত্রী কৃষ্ণা রায়। দীর্ঘদিন ধরে কোভিড পরবর্তী সমস্যা ভুগছিলেন তিনি।

আজ সকালে চেন্নাইয়ের এক হাসপাতালে প্রয়াত হন মুকুল রায়ের স্ত্রী কৃষ্ণা রায়। দীর্ঘদিন ধরে কোভিড পরবর্তী সমস্যা ভুগছিলেন তিনি। দক্ষিণ কলকাতার এক হাসপাতালে ভর্তি থাকার পর কয়েকদিন আগে তাঁকে চেন্নাই নিয়ে যাওয়া হয়েছিল ফুসফুস প্রতিস্থাপনের জন্যে। এদিন সকালে তিনি সেখানেই শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। কৃষ্ণা রায়ের মৃত্যুতে এদিন শোকজ্ঞাপন করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মুকুল রায় ও শুভ্রাংশুর প্রতি সমবেদন ব্যক্ত করেন তিনি।

এদিন রাজ্যের তথ্য ও সংস্কৃতি বিভাগের তরফ থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের শোক বার্তা প্রকাশ করা হয়। তাতে লেখা, 'বিধায়ক শ্রী মুকুল রায়ের স্ত্রী কৃষ্ণা রায়ের প্রয়াণে আমি গভীর শোক প্রকাশ করছি। তিনি আজ ভোরে চেন্নাইয়ে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। কৃষ্ণা দেবী বিভিন্ন জনহিতকর কাজের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। আমি তাঁকে ঘনিষ্ঠভাবে চিনতাম। তিনি মানুষের ভালো চাইতেন। আমি কৃষ্ণা রায়ের স্বামী মুকুল রায় ও পুত্র শুভ্রাংশু রায় এবং পরিবার-পরিজন ও অনুরাগীদের আন্তরিক সমবেদনা জানাচ্ছি।'

এর আগে জুন মাসে কৃষ্ণা রায়কে দেখতে হাসপাতালে গিয়েছিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখান থেকেই মুকুলের তৃণমূলে ফেরার পথ আরও প্রশস্ত হয়েছিল। শুভ্রাংশু রায়ের সঙ্গে সেদিন কথা বলেছিলেন অভিষেক। যদিও কৃষ্ণা দেবীর শারীরিক অবস্থার খোঁজ নিতে যাওয়াকে সৌজন্যতা বলে আখ্যা দেওয়া হয়েছিল উভয় পক্ষের তরফেই।

 

বন্ধ করুন