ফাইল ছবি
ফাইল ছবি

মুখ্যমন্ত্রী নিজে বিভ্রান্ত, আর মানুষকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছেন

  • মমতা ব্যানার্জি সব কিছুকেই গুলিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছেন। নিজে বিভ্রান্ত, আর মানুষকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছেন। তাই রেড জোনকে আবার তিন ভাগে ভাগ করেছেন, বললেন দিলীপ

পশ্চিমবঙ্গের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে ফের একবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সরাসরি আক্রমণ করলেন বিজেপি নেতা দিলীপ ঘোষ। সোমবার তিনি রাজ্য সরকারের রেড জোনকে তিন ভাগে ভাগ করার সিদ্ধান্তকে চরম কটাক্ষ করেন তিনি। বলেন, ‘বিভ্রান্ত সরকারের বিভ্রান্ত মুখ্যমন্ত্রীই এই ধরনের সিদ্ধান্ত নিতে পারেন।’

এদিন দিলীপবাবু বলেন, ‘জোন ঠিক করার ক্ষমতা কেন্দ্রীয় সরকার রাজ্যের হাতে ছেড়ে দিয়েছে। আগে যে সব জেলায় সংক্রমণ ছিল না সেখানেও এখন ব্যাপক হারে সংক্রমণ ছড়াচ্ছে। আমি জানি না, কেন লড়াইটাকে ওনারা এভাবে ছড়িয়ে দিচ্ছেন।‘

রেড জোনকে তিন ভাগে ভাগ করার সিদ্ধান্তকে কটাক্ষ করে রাজ্য বিজেপি সভাপতির মন্তব্য, ‘যে ব্যবস্থা বিশেষজ্ঞদের কথা মতো নেওয়া হয়েছে সেটাকে মানাটাই এই করোনার বিরুদ্ধে লড়াই। কিন্তু মমতা ব্যানার্জি সব কিছুকেই গুলিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছেন। নিজে বিভ্রান্ত, আর মানুষকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছেন। তাই রেড জোনকে আবার তিন ভাগে ভাগ করেছেন।‘ 

দিলীপ ঘোষের প্রশ্ন, ‘এভাবে কী করে হয়? যেমন মৃত্যু নিয়ে ২টো ভাগে ভাগ। আক্রান্ত নিয়ে অ্যাকটিভ ও ইনঅ্যাকটিভ ভাগ। এই সমস্ত তথ্য পশ্চিমবাংলাতেই পাওয়া যায়। তিনটে – চারটে কমিটি। তারপর দেখা গেল কোনও কমিটিই কাজের নয়।‘ 

মুখ্যমন্ত্রীকে আক্রামণ করে তিনি বলেন, ‘একটা সরকার বা তার প্রধান যখন বিভ্রান্ত থাকেন তখন এই ধরণের সিদ্ধান্ত নেন। মানুষই বুঝতে পারছে না। এমনিই তিনটে জোন, তার ওপরে আবার তিনটে জোন। কত কমিটি করবেন। আসলে অষ্টরম্ভা কাজের কাজ কিছু হচ্ছে না।‘

বলে রাখি, সোমবার নবান্নে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান। এবার থেকে রেড জোনকে তিন ভাগে ভাগ করবে সরকার। কনটেনমেন্ট এ জোনে বন্ধ থাকবে সব কিছু। কনটেনমেন্ট বি জোনে কিছু কিছু দোকান ও পরিষেবা খোলা থাকবে। কনটেনমেন্ট সি জোনে চালু থাকবে সব কিছু। 

 

বন্ধ করুন