বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > 'মানুষকে ভিখারি করে রেখেছেন দিদিমণি, তাই লঙ্গর খুলতে হচ্ছে'
দিলীপ ঘোষ (PTI)
দিলীপ ঘোষ (PTI)

'মানুষকে ভিখারি করে রেখেছেন দিদিমণি, তাই লঙ্গর খুলতে হচ্ছে'

  • ভোটের মুখে সোমবার নবান্ন থেকে ‘মা কিচেন’-এর ভার্চুয়াল উদ্বোধন করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আপাতত কলকাতার বরো অফিসগুলিতে মিলবে ৫ টাকার খাবার। প্রতিটি বরোয় ৫০০ জনকে খাওয়ানোর ব্যবস্থা থাকছে।

ভোটের মুখে রাজ্য সরকারের ‘মা ক্যান্টিন’ প্রকল্পকে কটাক্ষ করলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। সোমবার এই প্রকল্পের উদ্বোধন করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এতে মাত্র ৫ টাকায় মিলবে ভাত – ডিম – সবজি। এদিন রাজ্য সরকারের এই প্রকল্পকে কটাক্ষ করে দিলীপবাবু বলেন, রাজ্যের মানুষকে ভিখারি বানিয়ে রেখেছেন দিদিমণি। তাই লঙ্গর খুলতে হচ্ছে। 

এদিন দিলীপবাবু বলেন, ‘দিদিমণি বললেন, আমি রাজ্যের ৮০ শতাংশ লোককে ২ টাকা কিলো চা খাওয়াই। কারণ, লোকের ৩০ টাকা কিলো চাল কেনার পয়সা নেই। দিদিমণি চাকরিবাকরি ব্যবসা দেননি কাউকে। তাই ৮০ শতাংশ লোককে ২ টাকা কিলো চাল খাইয়েছেন। গরিব করে রেখেছেন। ৭০ – ৭২ সালে মানুষ খেতে পেত না, বাংলায় লঙ্গর চলত। আজকে বাংলার মানুষের কাছে খাবার টাকা নেই। তা ৫ টাকার মা ক্যান্টিন চালাতে হচ্ছে। দিদিমণি প্রমাণ করলেন তিনি প্রশাসক হিসাবে সম্পূর্ণ ব্যর্থ। মানুষকে ভিখারি করে রেখেছেন।’

ভোটের মুখে সোমবার নবান্ন থেকে ‘মা কিচেন’-এর ভার্চুয়াল উদ্বোধন করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আপাতত কলকাতার বরো অফিসগুলিতে মিলবে ৫ টাকার খাবার। প্রতিটি বরোয় ৫০০ জনকে খাওয়ানোর ব্যবস্থা থাকছে। ধীরে ধীরে গোটা রাজ্যে এই প্রকল্প ছড়িয়ে দেওয়া হবে বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী। 

বলে রাখি, করোনার জেরে গত মার্চে লকডাউন শুরুর কয়েকদিন পর থেকে কলকাতার যাদবপুরে শ্রমজীবী ক্যান্টিন চালু করে সিপিআইএম। সেখানে ২০ টাকার বিনিময়ে রোজ পেট ভরে খাবার বিলি করে বাম যুবারা। এর পর কলকাতা-সহ রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় গড়ে ওঠে এই ক্যান্টিন।

 

বন্ধ করুন