ফাইল ছবি (PTI)
ফাইল ছবি (PTI)

কেন্দ্রের পাঠানো PPE-র রং নাপসন্দ মুখ্যমন্ত্রীর, সম্ভবত ব্যবহার করবে না রাজ্য

  • তাঁর দাবি, PPE-র এমন রং কস্মিনকালে কখনো দেখেননি তিনি।

করোনা মোকাবিলায় রাজনীতিকে দূরে রাখতে চেয়েও যেন রাখতে পারছেন না পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সোমবার তাঁর কথায় অন্তত তেমনই মনে হওয়া স্বাভাবিক। এদিন কেন্দ্রের পাঠানো PPE-র রং নিয়ে প্রশ্ন তুললেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর দাবি, PPE-র এমন রং কস্মিনকালে কখনো দেখেননি তিনি।।

সোমবার নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকে মমতা বলেন, ‘কেন্দ্রের কাছে ৫ লক্ষ PPE চাওয়া হয়েছিল। তার মধ্যে মাত্র ৩,০০০ PPE গতকাল দয়া করে কেন্দ্রীয় সরকার পাঠিয়েছে। আরও আশ্চর্য কি জানেন? একটা রং ঠিক করে দেওয়া হয়েছে। আমি শুনছি রংটা না কি হলুদ রং। বেস্পতি তুঙ্গে কি না কারও কারও। হলুদ রংটা কীসের সঙ্গে কীভাবে ম্যাচ করেছে আমি জানি না। কিংবা কোভিডের সঙ্গে ম্যাচ করেছে কি না... কিন্তু আমরা যেটা বিশ্বাস করি, ডাক্তারবাবুরা এগুলো সাদা বা একটু অ্যাশ কালারের টাইপের পরেন। অথবা একটু স্কাই বা ব্লু এই টাইপের পরেন। কিছু কিছু নার্সিং হোমে পিংক কালার টাইপের, কিছু কিছু নার্সিং হোমে। আমি তো এসব দেখিনি কখনো। কাজেই দেখে নিতে হবে ব্যাপারটা কী।

সঙ্গে আকারে ইঙ্গিতে বুঝিয়ে দেন, কেন্দ্রের পাঠানো হলুদ পিপিই ব্যবহার করবে না রাজ্য সরকার। মমতা বলেন, ‘তবে চিন্তা নেই বাংলার মানুষ যেখানে আছে, আমরা ২,০৭,১০০ যখন রিসিভ করতে পেরেছি। একটু দেরি হয়েছে ডাক্তারদের কাছে আমি ক্ষমা চেয়ে নেব। আরও ৯ লক্ষ অর্ডার আছে। প্রতিদিন ১৫,০০০ PPE আসছে রাজ্যের কাছে।‘

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, আন্তর্জাতিক কালার কোডিংয়ের নিয়ম অনুসারে আইসোলেশন ওয়ার্ডে ব্যবহার করা হয় এমন পিপিই রং হলুদ হয়। ওই পিপিই থেকে সংক্রমণের সম্ভাবনা থাকে বলে সতর্ক করার জন্য উজ্জ্বল রং ব্যবহার করা হয়।




বন্ধ করুন