বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > দু'হাতে রক্ত মেখে তৃতীয় দফায় মসনদে বসেছেন মমতা: জেপি নড্ডা
ভোট পরবর্তী হিংসায় আক্রান্ত এক কর্মীর সঙ্গে কথা বলছেন জেপি নড্ডা।
ভোট পরবর্তী হিংসায় আক্রান্ত এক কর্মীর সঙ্গে কথা বলছেন জেপি নড্ডা।

দু'হাতে রক্ত মেখে তৃতীয় দফায় মসনদে বসেছেন মমতা: জেপি নড্ডা

  • নড্ডা বলেন, তৃণমূল মূলত তৃণমূল স্তরের বিজেপি কর্মীদের ওপর আক্রমণ করছে। শুধু তাই নয়, তাদের পরিবারের ওপরেও হামলা হচ্ছে। মহিলাদের শ্লীলতাহানি ও ধর্ষণের অভিযোগ এসেছে।

পশ্চিমবঙ্গে ভোট পরবর্তী হিংসা দেখে আমার দেশভাগের সময় মনে পড়ছে। তখনকার মতোই এখনও বাংলার মাটি রক্তে ভিজছে। বুধবার ২ দিনের পশ্চিমবঙ্গ সফর শেষে সাংবাদিক বৈঠকে এমনই বললেন বিজেপি সভাপতি জেপি নড্ডা। মঙ্গলবার ২ দিনের পশ্চিমবঙ্গ সফরে আসেন তিনি। এই সফরে আক্রান্ত একাধিক পরিবারের সঙ্গে দেখা করেছেন বিজেপি সভাপতি। 

এদিন সাংবাদিক বৈঠকে নড্ডা বলেন, ‘আজ আমার ১৯৪৬ সালের ১৬ অগাস্ট ডায়রেক্ট কথা মনে পড়ছে। সেদিনের মতোই আজ বাংলার মাটি রক্তে ভেজা। রাজ্যে কার্যত গণহত্যা চললেও ৩৬ ঘণ্টা মুখ বন্ধ করে বসে ছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এতে বোঝা যায় হিংসায় তাঁর মদত রয়েছে। তৃতীয় দফায় দুহাতে রক্ত মেখে সিংহাসনে বসলেন মমতা।’

নড্ডা বলেন, তৃণমূল মূলত তৃণমূল স্তরের বিজেপি কর্মীদের ওপর আক্রমণ করছে। শুধু তাই নয়, তাদের পরিবারের ওপরেও হামলা হচ্ছে। মহিলাদের শ্লীলতাহানি ও ধর্ষণের অভিযোগ এসেছে। এতে প্রমাণিত হয় ভোটের আগে আমরা মহিলা সুরক্ষা নিয়ে যে উদ্বেগ প্রকাশ করেছিলাম তা সম্পূর্ণ সত্য। 

তিনি জানান, ক্যানিং-গোসাবার মতো এলাকায় গ্রামের পর গ্রাম আক্রান্ত। গোটা গ্রাম ছেড়ে পালিয়েছে মানুষজন। কোচবিহার থেকে মানুষ অসমে গিয়ে আশ্রয় নিয়েছে। 

নড্ডা জানান, রাজ্যে হিংসার বিরুদ্ধে লড়াই করবে বিজেপি। গণতান্ত্রিক উপায়ে পরাস্ত করবে অসহিষ্ণুতাকে।

 

বন্ধ করুন