বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > টাকা দিক কেন্দ্র, বিলি করবে রাজ্য— কিসান সম্মান, আয়ুষ্মান ভারত চালুর শর্ত মমতার
নবান্নে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সোমবার। ছবি সৌজন্য : পিটিআই (PTI)
নবান্নে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সোমবার। ছবি সৌজন্য : পিটিআই (PTI)

টাকা দিক কেন্দ্র, বিলি করবে রাজ্য— কিসান সম্মান, আয়ুষ্মান ভারত চালুর শর্ত মমতার

  • কেন্দ্রীয় কৃষি ও কৃষক কল্যাণমন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমর এবং কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী ড.‌ হর্ষ বর্ধনকে চলতি মাসের ৯ তারিখ এই চিঠি দুটি পাঠিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

‘প্রধানমন্ত্রী কিসান সম্মান নিধি যোজনা’ ও ‘আয়ুষ্মান ভারত যোজনা’— এই দুই কেন্দ্রীয় প্রকল্প রাজ্যে চালু না হওয়ায় বহুবার কেন্দ্রের বিজেপি সরকার, রাজ্যের বিজেপি নেতৃত্বের সমালোচনার শিকার হতে হয়েছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বাধীন পশ্চিমবঙ্গ সরকারকে। শাসকদল তৃণমূলের বিরুদ্ধে এমনও অভিযোগ ওঠে যে আয়ুষ্মান ভারত যোজনায় পাঠানো চিঠি ডাকঘর থেকে মানুষের বাড়ি পর্যন্ত পৌঁছতে দেওয়া হয়নি। এবার এই দুই প্রকল্পই রাজ্যে চালু করতে চেয়ে কেন্দ্রকে চিঠি পাঠালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

কেন্দ্রীয় কৃষি ও কৃষক কল্যাণমন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমর এবং কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী ড.‌ হর্ষ বর্ধনকে চলতি মাসের ৯ তারিখ এই চিঠি দুটি পাঠিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমরকে পাঠানো চিঠিতে মমতা পরিষ্কার জানিয়েছেন যে কেন্দ্রীয় সরকার প্রধানমন্ত্রী কিসান সম্মান নিধি প্রকল্প নিয়ে আসার অনেক আগে থেকেই কৃষক বন্ধু ও অন্যান্য প্রকল্পের মাধ্যমে বাংলার কৃষকদের পাশে দাঁড়িয়েছে রাজ্য সরকার। আর মন্ত্রী ড.‌ হর্ষ বর্ধনকে পাঠানো চিঠিতে রাজ্যের পক্ষ থেকে মমতার সাফ বক্তব্য, কেন্দ্রীয় সরকার আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্প নিয়ে আসার অনেক আগে থেকেই পশ্চিমবঙ্গে প্রতিটি সরকারি হাসপাতালে বিনামূল্যে চিকিৎসা পরিষেবা দেওয়া হয়।

উল্লেখ্য, রাজ্যে ‘প্রধানমন্ত্রী কিসান সম্মান নিধি’ প্রকল্প চালু না হওয়ায় মুখ্যমন্ত্রীকে নিন্দা জানিয়ে মঙ্গলবার সকালে টুইট করেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। তিনি টুইটে জানিয়েছেন, এর জেরে পশ্চিমবঙ্গের ৭০ লক্ষ কৃষক ৮,৪০০ কোটি টাকার সুবিধা থেকে বঞ্চিত হয়েছেন। প্রশাসন এই যোজনা চালু না করায় প্রত্যেক কৃষকের ১২ হাজার টাকা ক্ষতি হয়েছে। মনে করা হচ্ছে, রাজ্যপালের অভিযোগের পাল্টা দিতে এদিন রাজ্য প্রশাসনিক দফতর থেকে টুইট করে জানিয়ে দেওয়া হল যে, মুখ্যমন্ত্রী ইতিমধ্যে এই প্রকল্প চালুর জন্য কেন্দ্রকে চিঠি দিয়েছেন।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী ড.‌ হর্ষ বর্ধনকে পাঠানো চিঠিতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যে সরকারের ‘‌স্বাস্থ্যসাথী’‌ প্রকল্পের কথা উল্লেখ করেছেন। জানানো হয়েছে, বাংলার প্রায় সাড়ে ৭ কোটি মানুষ এই প্রকল্পের আওতাভুক্ত। তিনি জানিয়ে দেন, ‘আয়ুষ্মান ভারত যোজনা’ রাজ্যে সম্পূর্ণভাবে চালু করতে হলে তার ১০০ শতাংশ খরচ বহন করতে হবে কেন্দ্রকে। এবং এর পুরো ফান্ড রাজ্যের হাত থেকে সংশ্লিষ্ট দফতরে পৌঁছে দেওয়ার অনুমতি দিতে হবে। একই কথা বলা হয়েছে কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমরকে পাঠানো চিঠিতে। এ ক্ষেত্রেও ফান্ড সরাসরি রাজ্য সরকারের হাতে দেওয়ার কথা বলা হয়েছে।

বন্ধ করুন