বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > চিংড়িঘাটায় এত দুর্ঘটনা কেন? কলকাতা-বিধাননগর পুলিশকে 'ইগো' মেটানোর বার্তা মমতার
প্রশাসনিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় 
প্রশাসনিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় 

চিংড়িঘাটায় এত দুর্ঘটনা কেন? কলকাতা-বিধাননগর পুলিশকে 'ইগো' মেটানোর বার্তা মমতার

  • কলকাতা ও বিধাননগর কমিশনারেটের মধ্যকার দ্বন্দ্বের প্রসঙ্গ তুলে তা মেটাতে বলেন মমতা।

বিগত বেশ কয়েকদিন ধরেই লাগাতার দুর্ঘটনা ঘটে চলেছে চিংড়িঘাটায়। পরপর এই দুর্ঘটনায় ক্ষুব্ধ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মধ্যমগ্রামের প্রশাসনিক সভায় এদিন এই বিষয়ে নিজের ক্ষোভ প্রকাশ করে মমতা বলেন, 'আর একটাও দুর্ঘটনা দেখতে চাই না।' পাশাপাশি এদিন কলকাতা ও বিধাননগর কমিশনারেটের মধ্যকার দ্বন্দ্বের প্রসঙ্গ তুলে তা মেটাতে বলেন মমতা।

মুখ্যমন্ত্রী এদিন বলেন, 'রোজ রোজ চিংড়িঘাটায় দুর্ঘটনা ঘটছে। কলকাতা পুলিশ এবং বিধাননগর কমিশনারেটের দ্বন্দ্বের জেরে দুর্ঘটনা ঘটছে। শীঘ্র দ্বন্দ্ব মেটান। নিজেরা বসে আগে ইগোর লড়াই মেটান। মানুষ দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন। চিংড়িঘাটায় এত দুর্ঘটনা কেন?' উল্লেখ্য, চিংড়িঘাটা মোড় থেকে ইএম বাইপাস পর্যন্ত রাস্তাটি কলকাতা পুলিশের নিয়ন্ত্রণাধীন। এদিকে চিংড়িঘাটা উড়ালপুল থেকে সেক্টর ফাইভের দিকের রাস্তাটি বিধাননগর কমিশনারেটের অধীনে।

চতুর্থীর রাতে এক যুবক ও তরুণী বাইকে করে যাওয়ার সময় চিংড়িঘাটার কাছে দুর্ঘটনার কবলে পড়েন। ভাইফোঁটার দিনও চিংড়িঘাটা ক্রসিংয়ে দুর্ঘটনা ঘটে। বেপরোয়া চারচাকায় পিষে যান ছয় পথচারী। এরপর গত ১৬ নভেম্বর ট্রাকের ধাক্কায় মৃত্যু হয় বাইক আরোহীর।

এদিকে আজকের প্রশাসনিক বৈঠকে উত্তর ২৪ পরগনার ঘূর্ণিঝড় বিধ্বস্ত এলাকাগুলির পরিস্থিতি প্রসঙ্গে প্রশ্ন করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আমফান ও ইয়াসে দুর্গতদের এলাকা থেকে রিপোর্ট নেওয়া হয়েছে কি না, সেই বিষয়ে জেলাশাসকের কাছে জানতে চান তিনি। জবাবে জেলাশাসক জানান, কোনও কাজ বাকি নেই। দুর্গতদের সবাই ক্ষতিপূরণ পেয়েছেন।

 

বন্ধ করুন