ধরনামঞ্চে উঠে মাইক হাতে ছাত্রদের শান্ত থাকার আবেদন জানান মুখ্যমন্ত্রী।
ধরনামঞ্চে উঠে মাইক হাতে ছাত্রদের শান্ত থাকার আবেদন জানান মুখ্যমন্ত্রী।

ব্যারিকেড ভাঙল মিছিল, মমতার সঙ্গে ছাত্রদের স্লোগানযুদ্ধ

বিক্ষোভ মিছিল ব্যারিকেড ভাঙলে পুলিশ বাধা দেয়। এই নিয়ে কথা কাটাকাটি চলার সময় পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি শুরু হয় প্রতিবাদী পড়ুয়াদের। ঘটনার জেরে উত্তেজনার পারদ চড়তে থাকে রানি রাসমণি রোড সংলগ্ন এলাকায়।

প্রধানমন্ত্রীর বাংলা সফরের বিরুদ্ধে ছাত্রবিক্ষোভ ঘিরে উত্তেজনা ছড়াল ডোরিনা ক্রসিংয়ে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে ঘটনাস্থলে পৌঁছে শান্তির আবেদন জানালেন মুখ্যমন্ত্রী।

শনিবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে ডোরিনা ক্রসিংয়ে বাম ছাত্র সংগঠনগুলির বিক্ষোভ মিছিল ব্যারিকেড ভাঙলে পুলিশ বাধা দেয়। এই নিয়ে কথা কাটাকাটি চলার সময় পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি শুরু হয় প্রতিবাদী পড়ুয়াদের। ঘটনার জেরে উত্তেজনার পারদ চড়তে থাকে রানি রাসমণি রোড সংলগ্ন এলাকায়।

এই ঘটনার কিছু ক্ষণ আগেই মিলেনিয়াম পার্কে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কলকাতা পোর্ট ট্রাস্টের ১৫০ তম বার্ষিকী উপলক্ষে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মমতা। অনুষ্ঠান সেরে রানি রাসমণি রোডে সিএএ ও এনআরসির বিরুদ্ধে টিএমসিপির ধরনামঞ্চে পৌঁছন মমতা। এদিকে ব্যারিকেড ভেঙে ধরনা অবস্থানে পৌঁছনোর চেষ্টা করলে বাম ছাত্রদের বাধা দেয় পুলিশ। শুরু হয় তাদের সঙ্গে বিক্ষুব্ধ ছাত্রদের ধস্তাধস্তি।

উত্তেজনার পারদ চড়লে আসরে নামেন মমতা। ধরনামঞ্চে উঠে মাইক হাতে ছাত্রদের শান্ত থাকার আবেদন জানান মুখ্যমন্ত্রী। তা সত্ত্বেও সরকার-বিরোধী স্লোগান দিয়ে প্রতিবাদ জানাতে থাকেন পড়ুয়ারা। এই সময় মুখ্যমন্ত্রী ও তাঁর সঙ্গে থাকা পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম-সহ তৃণমূল নেতাদের সিএএ, এনআরসি ও এনপিআর বিরোধী পালটা স্লোগান দিতে দেখা যায়। ওদিকে আজাদি স্লোগান দিয়ে তাঁদের বিরুদ্ধে সুর চড়ান প্রতিবাদী পড়ুয়ারা। এক সময় মাইক ছেড়ে মঞ্চের উপর অনেক ক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায় বিরক্ত মুখ্যমন্ত্রী ও তাঁর সঙ্গীদের।কে।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর দুই দিনের রাজ্য সফরের বিরুদ্ধে এ দিন শহরের বিভিন্ন প্রান্তে বিক্ষোভ মিছিল ও সভা আয়োজিত হয়েছে। নিরাপত্তার স্বার্থে বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রীর বিমান নামার পরে হেলিকপ্টারে তাঁকে রেসকোর্সে উড়িয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে রাজভবনে পৌঁছয় প্রধানমন্ত্রীর কনভয়। ব্যারিকেড দেওয়া হয় রেসকোর্স থেকে রাজভবন যাওয়ার গোটা পথ। তা সত্ত্বেও উড়ালপুলে উঠে তাঁকেো কালো পতাকা দেখানোর চেষ্টা করেন প্রতিবাদীরা।

প্রধানমন্ত্রী বেলুড়ের উদ্দেশে রওনা হওয়ার পরে সন্ধ্যায় ডোরিনা ক্রসিংয়ে ছাত্রদের বিক্ষোভ মিছিল ব্যারিকেড ভাঙলে পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি বাধে। পরিস্থিতি ক্রমে উত্তপ্ত হয়ে উঠলে ঘটনাস্থলে পৌঁছে বিক্ষুব্ধদের শান্ত হওয়ার আবেদন জানান স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাত ৯টার এর পরেও ধরনামঞ্চে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গিয়েছে মমতাকে। বিক্ষোভ অবস্থানে সেই সময় মোদী-বিরোধী স্লোগান চলেছে।

বন্ধ করুন