বাবুল সুপ্রিয়। ফাইল ছবি (PTI)
বাবুল সুপ্রিয়। ফাইল ছবি (PTI)

'মৃতদেহের সামনে দাঁড়িয়ে রাজনীতি করা কুরুচিকর প্রবণতা, এটা দিদিই পারেন'

মমতার এই মন্তব্যকে তীব্র আক্রমণ করেছেন বাবুল সুপ্রিয়। তিনি বলেন, ‘একজন শিল্পীকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে গিয়ে নোংরা রাজনীতি করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

তাপস পালকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্তব্যের তীব্র নিন্দা করলেন বাবুল সুপ্রিয়। বুধবার বাবুল বলেন, ‘শিল্পীকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে গিয়ে এমন নোংরা রাজনীতি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পক্ষেই সম্ভব।’

বুধবার সর্বসাধারণের শ্রদ্ধাজ্ঞাপণের জন্য কলকাতার রবীন্দ্র সদনে শায়িত ছিল তাপস পালের দেহ। সেখানেই দলের প্রাক্তন সাংসদকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে যান তিনি। বেশ কিছুক্ষণ কথা বলেন তাপসের স্ত্রী নন্দিনী ও মেয়ে সোহিনীর সঙ্গে। এর পর সেখানে দাঁড়িয়েই তাপসের মৃত্যুর জন্য কেন্দ্রীয় সরকার ও কেন্দ্রীয় তদন্তরী সংস্থাগুলিকে দায়ী করেন তিনি।

বলেন, ‘আগে অনেকবার বলার চেষ্টা করেছি, অনেকে হয়ত এটা জানে, আজ বলতে চাই..একটা এজেন্সির দ্বারা অত্যারচারিত হয়ে ওঁর জীবন দুর্বিসহ হয়ে উঠেছিল। ও নিজেকে গুটিয়ে নিয়েছিল, মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছিল। মৃত্যুর আগে জানতেও পারল না ওর অপরাধটা কোথায়! এক বছর এক মাস তাপসের মতো অভিনেতাকে জেলে রেখে দেওয়া হল। আইন আইনের মতো চলবে.. তিনটে মৃত্যু আমি দেখলাম, তাপস পাল.. অসময়ে মৃত্যু, অকাল মৃত্যু। আহত অবস্থায় তাঁর এই অকালে চলে যাওয়া। চলচ্চিত্র জগতের অপূরণীয় ক্ষতি তো বটেই। শিল্পীরা যারা বিভিন্ন প্রোডাকশন হাউসে কাজ করেন, ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসডর হয়ে কাজ করেন সেই কাজ করতে গিয়ে যদি প্রাণ চলে যায় সেটা ঠিক হচ্ছে? কেন্দ্র সরকারের যে প্রতিহিংসা পরায়ণ রাজনীতি করছে সেটা ঠিক?’

মমতার এই মন্তব্যকে তীব্র আক্রমণ করেছেন বাবুল সুপ্রিয়। তিনি বলেন, ‘একজন শিল্পীকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে গিয়ে নোংরা রাজনীতি করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মৃতদেহের সামনে দাঁড়িয়ে এই ধরণের মন্তব্য কুরুচিকর। এটা ওনাকেই মানায়। ভুবনেশ্বরে উনি যখন সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়কে দেখতে গিয়েছিলেন তখন তো পাশের ঘরেই ছিলেন তাপস পাল। তার সঙ্গে দেখা করেননি কেন?’

বাবুল বলেন, ‘তাপসদার সঙ্গে আমার দীর্ঘদিনের ব্যক্তিগত হৃদ্যতা। উনি মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছিলেন। সহজ – সরল মানুষ হওয়ায় তৃণমূলের বেআইনি কাজে জড়িয়ে পড়েছিলেন উনি।’



বন্ধ করুন