বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > বিধ্বংসী আগুন সল্টলেক সেন্ট্রাল পার্কের ঝুপড়িতে, পুড়ে ছাই প্রায় ৭০টি ঝুপড়ি
বিধ্বংসী আগুন (ছবি সৌজন্য সংগৃহীত)
বিধ্বংসী আগুন (ছবি সৌজন্য সংগৃহীত)

বিধ্বংসী আগুন সল্টলেক সেন্ট্রাল পার্কের ঝুপড়িতে, পুড়ে ছাই প্রায় ৭০টি ঝুপড়ি

  • এখনও পর্যন্ত এই অগ্নিকাণ্ডে ৫০ থেকে ৭০টি ঝুপড়ি ও দোকান পুড়ে ছাই হয়ে গিয়েছে।

সোমবার সকালে সল্টলেকের সেন্ট্রাল পার্কের কাছে ঝুপড়িতে আগুন লাগার ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে গোটা এলাকায়। এই অগ্নিকাণ্ডের জেরে প্রায় ৫০টি ঝুপড়ি ভস্মীভূত হয়ে গিয়েছে। সকাল ৮টা নাগাদ আগুন লাগে। দ্রুত তা ছড়িয়ে পড়তে থাকে। ঘণ্টাখানেকের মধ্যে পুড়ে ছাই হয়ে যায় প্রায় ৫০টি ঝুপড়ি। কী করে আগুন লাগল তা এখনও অজানা। স্থানীয় বাসিন্দারা দ্রুত দমকলকে খবর দেন এবং ঝুপড়িতে বসবাসকারী সকলকে অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যান।

ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছয় দমকলের ৭টি ইঞ্জিন। আগুন নেভানোর চেষ্টা চলছে। আগুন লাগার কারণ এখনও স্পষ্ট নয়। দ্রুত আগুন নিয়ন্ত্রণের আনার চেষ্টা চালাচ্ছেন দমকলের কর্মীরা। তবে ঘটনায় এখনও পর্যন্ত কোনও হতাহতের খবর নেই। আগুন ছড়িয়ে পড়ার সময় ঝুপড়ির ঘরগুলিতে সবাই উপস্থিত ছিলেন। তাই দ্রুত সবাই ঘর থেকে বাইরে বেরিয়ে আসেন। বিধাননগর থানার পুলিশ এবং স্থানীয় বাসিন্দাদের তৎপরতায় সবাইকে নিরাপদে অন্যত্র নিয়ে যাওয়া হয়।

স্থানীয় সূত্রে খবর, সেন্ট্রাল পার্কের কাছে একটি অস্থায়ী ঝুপড়িতে আগুন লাগে। সেখানে প্রচুর দাহ্য পদার্থ মজুত থাকায় আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়তে শুরু করে। এখনও পর্যন্ত এই অগ্নিকাণ্ডে ৫০ থেকে ৭০টি ঝুপড়ি ও দোকান পুড়ে ছাই হয়ে গিয়েছে। তবে সেখানকার বাসিন্দাদের নিরাপদ জায়গায় সরিয়ে নিয়ে যাওয়া সম্ভব হয়েছে। দমকল এসে যুদ্ধকালীন তৎপরতায় আগুন নেভানোর কাজ করছেন। আপাতত আগুন নেভানোর কাজ চলছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়েছে বলেই জানাচ্ছেন দলকলবাহিনীর আধিকারিকরা। হঠাৎ করে সকালে সেন্ট্রাল পার্কের কাছের ঝুপড়িতে আগুন লাগার ঘটনা নিয়ে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে আশেপাশের এলাকাতেও। 

ঠিক কীভাবে লাগল আগুন? দমকল সূত্রে খবর, এখনও স্পষ্টভাবে অগ্নিকাণ্ডের কারণ জানা যায়নি। তবে মজুত থাকা দাহ্য পদার্থে আগুন লেগে তা ছড়িয়ে পড়ে বলেই প্রাথমিকভাবে অনুমান করা হচ্ছে। ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে বিধাননগর থানার পুলিশ। উপস্থিত দমকল মন্ত্রী সুজিত বসুও। তিনি বলেন, ‘‌হতাহতের কোনও খবর নেই। ওদের আর্থিক ক্ষতি অনেকটাই হয়েছে। ঠিক কতগুলি ঝুপড়ি ও দোকান ক্ষতিগ্রস্ত, আমরা দেখে নিচ্ছি।’‌ গোটা ঘটনার তদন্ত করে খতিয়ে দেখা হবে বলে জানান পুলিশ কর্তারা ও দমকলের আধিকারিকরা।

বন্ধ করুন