বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > জোর করে ভোট দানে বাধা দিলে বহিষ্কার, হুঁশিয়ারি অভিষেকের
অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। (ছবি সৌজন্য এএনআই)
অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। (ছবি সৌজন্য এএনআই)

জোর করে ভোট দানে বাধা দিলে বহিষ্কার, হুঁশিয়ারি অভিষেকের

  • বার বারই শাসকদল তৃণমূলের বিরুদ্ধে ভোট লুঠের অভিযোগ ওঠে। বিরোধীরা নানাভাবে এনিয়ে তৃণমূলকে দুষেছে।

সামনেই কলকাতা পুরভোট। সেই পুরভোটের রণকৌশল নির্ধারণ করতে শনিবার তৃণমূলের বৈঠক। আর সেই বৈঠকেই একেবারে কড়া বার্তা তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের। টিকিট না পাওয়া নেতারাও এদিন বৈঠকে ছিলেন। বৈঠক সূত্রে খবর, এদিন অভিষেক স্পষ্টতই জানিয়ে দেন, ভোটদানে কোনওভাবেই বাধা দেওয়া যাবে না। ভোটে বিশৃঙ্খলা কোনওভাবেই বরদাস্ত করা যাবে না। দলের উর্ধে কেউ নয়। এভাবেই কড়া বার্তা দিয়েছেন অভিষেক। এর জেরে স্বাভাবিকভাবে কিছুটা হলেও থমকে গিয়েছেন নেতা কর্মীদের একাংশ।

এদিকে বার বারই শাসকদল তৃণমূলের বিরুদ্ধে ভোট লুঠের অভিযোগ ওঠে। বিরোধীরা নানাভাবে এনিয়ে তৃণমূলকে দুষেছে। এদিকে এবারও কলকাতা পুরসভা নির্বাচনেতৃণমূল সন্ত্রাস করতে পারে বলে আশঙ্কা তৈরি হয়েছিল। সন্ত্রাস করে পুরসভা কব্জা করার চেষ্টা করছে তৃণমূল এমন অভিযোগে সরব হয়েছিলেন বিরোধীরাও। ভোটে কেন্দ্রীয় বাহিনী আনার ব্যাপারেও তদ্বির শুরু হয়েছিল। তবে এবার প্রথম থেকেই তৃণমূলের একাধিক নেতৃত্বের সুর অনেকটাই নরম। অতীতে কিছুক্ষেত্রে ভুল হয়ে গিয়েছে বলেও ঘনিষ্ঠ মহলে স্বীকার করছিলেন তৃণমূল নেতৃত্বে। এদিনের বৈঠকেও সেই সন্ত্রাস দমনেই কড়া দাওয়াই দিলেন অভিষেক। এমনটাই খবর তৃণমূল সূত্রে।

 বৈঠক থেকে বেরিয়ে একাধিক তৃণমূল নেতৃত্ব জানিয়েছেন, কোনওভাবেই জবরদস্তি করা যাবে না। বিরোধী দলের সমর্থকদের বাড়িতেও যেতে হবে। ভোটদানে বাধা দিলে বা অশান্তি তৈরি করলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এমনকী কোনও নেতার ছাতার তলায় থেকেও রেহাই মিলবে না। তবে এসব কথা শুনে বিরোধীদের দাবি, সবটাই আইওয়াশ।   

বন্ধ করুন